বুধবার

১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ সংবাদ

করোনা টিকা প্রয়োগে অনুমতি দিলো যুক্তরাজ্য কোটি কোটি টিকা সরবরাহর প্রস্তুতি নিচ্ছে চীন

Paris
Update : বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২০

এফএনএস : বিশ্বের প্রথম করোনা টিকা বাজারে ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাজ্য। আগামী সপ্তাহে থেকে ফাইজার এবং বায়োএনটেকের তৈরি টিকা পাওয়া যাবে দেশটির বাজারে। বুধবার বাংলাদেশ সময় দুপুরে চূড়ান্ত অনুমোদনও দেয়া হয়েছে। স্কাই নিউজ জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের সংস্থা ফাইজার এবং জার্মানির বায়োএনটেক ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত অনুমোদন পেয়েছে। ডিপার্টমেন্ট অব হেলথ অ্যান্ড সোশ্যাল কেয়ারের মুখপত্র বলেছেন, সরকার দেশটির মেডিক্যাল রেগুলেটরি মেডিসিনস অ্যান্ড হেলথ কেয়ার প্রোডাক্ট রেগুলেটরি এজেন্সির (এমএইচআরএ) প্রস্তাব মেনে ফাইজার এবং বায়োএনটেকের তৈরি ভ্যাকসিন টিকার অনুমোদন দিয়েছে।

এদিকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কোটি কোটি করোনাভাইরাসের টিকা সরবরাহের প্রস্তুতি নিচ্ছে। সিএনএন জানায়। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ চীনের শেনঝেন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ধূসর গুদামের অভ্যন্তরে একটি সারি সাদা চেম্বার চোখে পড়ে। বিশেষভাবে ঘিরে রাখা এসব চেম্বারের বাইরে লাগানো রয়েছে ডিসপ্লে স্ক্রিন। তাতে চেম্বারের ভেতরকার বিশেষ তাপমাত্রা প্রদর্শন করছে। এর সামনেই মুখে মাস্ক, সার্জিক্যাল গাউন ও রাবারের দস্তানা পরে দাঁড়িয়ে রয়েছেন নিরাপত্তারক্ষীরা। এ এলাকায় কাউকে ঢুকতে হলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন বা আপাদমস্তক ঢাকা স্যুট পরা বাধ্যতামূলক।

বিশেষ তাপমাত্রায় নিয়ন্ত্রিত ৩৫০ বর্গমিটার এলাকাজুড়ে থাকা চেম্বারগুলো শিগগিরই ভর্তি হবে চীনা কোম্পানির তৈরি করোনার টিকায়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নিয়ন্ত্রকেরা টিকার অনুমোদন দিলেই তা সরবরাহ করার জন্য প্রস্তুত চীন। এ গুদাম থেকেই তাপমাত্রা-নিয়ন্ত্রিত কার্গো উড়োজাহাজে করে বিভিন্ন দেশে টিকা সরবরাহ করবে চীন। বিশ্বের যেসব দেশে চীনের টিকার তৃতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা চলছে, সেখানে আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই কয়েক কোটি ডোজ সরবরাহ করবে। চীনের রাজনৈতিক নেতারা বলছেন, তাদের টিকা পরীক্ষা সফল হলে উন্নয়নশীল দেশগুলোকে টিকার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

চীনে বর্তমানে চারটি প্রতিষ্ঠানের পাঁচটি টিকা তৃতীয় ধাপের পরীক্ষায় রয়েছে। টিকা পরীক্ষার তৃতীয় ধাপ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। এ পর্যায়ে টিকার নিরাপত্তা ও কার্যকারিতা দেখার পরই নিয়ন্ত্রকেরা অনুমোদন দেন। দেশের অভ্যন্তরে টিকার সফলতার পর চীনা প্রতিষ্ঠানগুলো বিশ্বের ১৬টি দেশে তা পরীক্ষা চালাচ্ছে। টিকা পরীক্ষা করা দেশগুলোকে শুরুতেই টিকা দেওয়ার ও স্থানীয়ভাবে উৎপাদনদের প্রযুক্তি হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো।


আরোও অন্যান্য খবর
Paris