রবিবার

৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সনদ জালিয়াতি করে চাকরির দায়ে এনসিসি ব্যাংক কর্মকর্তার কারদণ্ড

Paris
Update : মঙ্গলবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২০

এফএনএস : মাত্র এসএসসি পাস করে অনার্স ও মাস্টার্সের সার্টিফিকেট দাখিল করে এনসিসি ব্যাংকে জুনিয়র কর্মকর্তা পদে চাকরি নেওয়া সিদ্দিকুর রহমানকে দণ্ডবিধির দু’টি ধারায় ৮ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪ এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এ রায় দেন। দণ্ডবিধির ৪৬৮ ধারায় আসামিকে পাঁচ বছর কারাদণ্ড ও ২৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিনমাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া একই আইনের ৪৭১ ধারায় তিন বছর কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদণ্ড দেন আদালত।

দুদকের কৌঁসুলি মীর আহমেদ আলী সালাম জানান, দুটি অভিযোগের দণ্ড একসঙ্গে চলবে বলে আদালত রায়ে বলেছেন। তাই তাকে পাঁচ বছর সাজা খাটতে হবে। রায় ঘোষণার সময় আসামি সিদ্দিক আদালতে উপস্থিত ছিলেন। পরে তাকে সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। অভিযোগ থেকে জানা যায়, সিদ্দিক মাত্র এসএসসি পাস। পরে তিনি ফরিদপুরের সরকারি ইয়াসিন কলেজ থেকে এইচএসসি এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ থেকে ব্যবস্থাপনা বিভাগে এমকম অনার্স ও মাস্টার্সের সার্টিফিকেট দাখিল করে এনসিসি ব্যাংকে জুনিয়র কর্মকর্তা হিসেবে ২০০৯ সালের ১ জানুয়ারি চাকরি নেন।

চাকরিতে থাকাকালে একটি দুর্নীতি মামলার তদন্ত চলাকালে তার সার্টিফিকেট জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়ে। এরপর দুদক উপপরিচালক ফজললু হক বাদী হয়ে ২০১৭ সালের ১৫ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪২০/৪৬৭/৪৬৮/৪৭১ ধারায় মতিঝিল থানা জালজালিযাতি ও প্রতারণার মামলা করেন। গত ২০১৮ সালের ১৮ এপ্রিল অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। ২০১৮ সালের ১২ ডিসেম্বর মামলায় সিদ্দিকের বিরুদ্ধে বিচার শুরু হয়। ২০১৯ সালের ২৪ ডিসেম্বর সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। মামলায় মোট ১০ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ১৯ নভেম্বর বিচার কাজ শেষ হয়।


আরোও অন্যান্য খবর
Paris