রবিবার

৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নেতাকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত ওমর ফারুক চৌধুরী

Paris
Update : মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২৩

তানোর থেকে প্রতিনিধি

রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনে টানা পঞ্চম বারের মত দলীয় মনোনয়ন পাওয়ায় নেতাকর্মী থেকে শুরু করে আপামর জনতার ভালোবাসায় সিক্ত এমপি ফারুক চৌধুরী। সোমবার ঢাকা থেকে বিমান যোগে নওহাটা শাহমুখদম বিমান বন্দরে বিকেল পাঁচটার দিকে উপস্থিত হন তিনি। এর আগে তানোর ও গোদাগাড়ী থেকে হাজার হাজার নেতাকর্মী থেকে শুরু করে আপামর জনতারা অপেক্ষা করতে থাকেন এমপির জন্য। বিমান থেকে নামার পরেই উপস্থিত নেতাকর্মীদের স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হয়ে পড়ে পুরো বিমান বন্দর এলাকা। হাজার হাজার নেতাকর্মীদের ফুললে ভালবাসায় সিক্ত হন ফারুক চৌধুরী। এক পর্যায়ে নেতাকর্মীদের চাপে এমপি ছাদ খোলা গাড়ি থেকে হ্যান্ড মাইকে ঘোষণা করেন রাজশাহীর বাসভবনে গিয়ে সবার মালা গ্রহণ করা হবে। এমপির সফর সঙ্গী ছিলেন তানোর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না, গোদাগাড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোদাগাড়ী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, তানোর উপজেলা আ”লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রদীপ সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান কৃষকলীগের সম্পাদক প্রভাষক আবুল কালাম আজাদ প্রদীপ সরকার।

জানা গেছে, টানা পঞ্চম বারের মত ফারুক চৌধুরী দলীয় মনোনয়ন পান। তিনবারের তিনি নির্বাচিত এমপি এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা একবার শিল্পপ্রতি মন্ত্রীর দায়িত্ব দেন। ফারুক চৌধুরী বিগত ২০০১ সালে বিএনপির হেভিওয়েট মন্ত্রী প্রয়াত নেতা ব্যরিস্টার আমিনুল হকের কাছে সামান্য ভোটে পরাজিত হন। পরাজিত হলেও রাজনীতির মাঠ ছাড়েন নি ফারুক চৌধুরী। দুই উপজেলার গ্রাম গঞ্জ, পাড়া মহল্লায় বঙ্গবন্ধুর আদর্শ প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম। যার ফলে ফারুক চৌধুরী বিগত ২০০৮ সালে বিপুল ভোটে বিএনপির হেভিওয়েট নেতা প্রয়াত ব্যারিস্টার আমিনুল হককে পরাজিত করে প্রথমবারের মত তানোরের কৃতি সন্তান ফারুক চৌধুরী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে তাক লাগিয়ে দেন।  এর পরে ২০১৪ ও ২০১৮ সালের নির্বাচনেও সংসদ সদস্য হন। আগামী ২০২৪ সালের ৭ জানুয়ারীর নির্বাচনেও বিপুল ভোটে বিজয় লাভ করবেন বলে মনে করছেন সিনিয়র নেতারা।


আরোও অন্যান্য খবর
Paris