শনিবার

২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুবলীগ নেতা জেম হত্যা মামলায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর মেয়র কারাগারে

Paris
Update : মঙ্গলবার, ৬ জুন, ২০২৩

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাবেক যুবলীগ নেতা ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর খাইরুল আলম জেম হত্যার ঘটনায় উচ্চ আদালতে জামিন পাওয়া প্রধান আসামী চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মোখলেসুর রহমানকে কারাগারে প্রেরণ করেছে আদালত। মঙ্গলবার (০৬ জুন) দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক নির্মলেন্দু দাশ এই আদেশ দেন। পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) নাজমুল আজম জানান, জেম হত্যা মামলার প্রধান আসামী আদালতে আত্নসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। জামিন বাতিলের বিষয়টি আমরা তুলে ধরি। পরে আদালত বিচার-বিশ্লেষণ করে জামিন বাতিল করে কারগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

তিনি আরও জানান, মামলার মোট ৪৮ জন আসামী। তারমধ্যে ৩৪ জন আসামী উচ্চ আদালতে জামিন নেয়। গত ৩০ মে উচ্চ আদালতে জামিন পাওয়া ৩২ জন আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন। পরে আদালত ২৬ জনকে জামিন দেয়। এর আগে ০৩ মে উচ্চ আদালতে তারা জামিন নেয়। হত্যাকান্ডের ঘটনায় ৫ জন আসামী ১৬৪ ধারায় ১২ জন আসামীর সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করেছেন।

আসামীপক্ষের আইনজীবী নজরুল ইসলাম বলেন, আমরা মনে করি, আদালত বিচার বিশ্লেষণ করে সঠিক সীধান্ত দিয়েছেন। আসামীদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ পর্যালোচনা করেই আদালত সীধান্ত দিয়েছে। এ ঘটনায় ১২ জন আসামী সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। কারাগারে প্রেরণের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করা হবে।

অ্যাড. নজরুল ইসলাম আরও বলেন, হাইকোর্ট থেকে জামিন পাওয়ার পর আদালতে উপস্থিত হয়ে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করেন। এর আগে গত ৩০ মে আদালতে উপস্থিত হয়ে আত্মসমর্পণ করার কথা থাকলেও মামলার প্রধান আসামী মোখলেসুর রহমান শারীরিকভাবে অসুস্থ থাকায় উপস্থিত হতে পারেননি। সুস্থ হওয়ার পরই আজ আদালতে আত্নসমর্পণ করেন।

এর আগে ৩০ মে দুপুরে জেম হত্যা মামলার ৩২ আসামী আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন আবেদন করে। পরে আদালতের বিচারক ২৬ জনের জামিন বহাল রেখে ৬ জনের জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। কারাগারে যাওয়া আসামীরা হলেন- গত চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের উপ-নির্বাচনে সংসদ সদস্য পদে অংশ নেয়া প্রার্থী ও বহিস্কৃত জেলা যুবলীগের সভাপতি সামিউল হক লিটন, চরবাগডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদ রানা টিপু, আব্দুল কাদের, আলমগীর হোসেন, জামিল হোসেন, মাহিন রেজা উরফে মুমিন।

উল্লেখ্য, গত ১৯ এপ্রিল চাঁপাইনবাবগঞ্জের উদয়ন মোড় এলাকায় ইফতারির বাজার করার সময় খাইরুল আলম জেমকে দেশী-বিদেশী ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করা হয়। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার প্রক্রিয়াকালে তার মৃত্যু হয়। হত্যাকাণ্ডের তিন দিন পর গত ২২ এপ্রিল রাত ২টার দিকে খাইরুল আলম জেমের বড় ভাই মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র, দুই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ ৪৮ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।


আরোও অন্যান্য খবর
Paris