মঙ্গলবার

২৫শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

১১ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নান্দনিক ভবন ডিজাইনের কারিগর মেসার্স রহমান ডেভেলপার এন্ড এসোসিয়েটস

Paris
Update : বুধবার, ১ মার্চ, ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার
রাজশাহীর আবাসন খাতের অন্যতম জনপ্রিয় নাম মেসার্স রহমান ডেভেলপার এন্ড এসোসিয়েটস্। রাজশাহীতে আবাসন ব্যবসার শুরু থেকেই এই প্রতিষ্ঠানের নাম জড়িয়ে রয়েছে। আজ থেকে ১৫ বছর আগে যখন হাতে গোনা দুই থেকে তিনটি বহুতল ভবন ছিল সেসময় বর্তমানের মেসার্স রহমান ডেভেলপারস ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে তখনো প্রতিষ্ঠিত ছিল।
রেডার বর্তমান সভাপতি ও মেসার্স রহমান ডেভেলপার এন্ড এসোসিয়েটস্ এর ম্যানেজিং পার্টনার তৌফিকুর রহমান লাভলু বলেন, রেডার সমিতি ভুক্তের আগে আবাসন ব্যবসা শুরু করি ২০০৭ সালে। প্রথম ভবন ছিল আলুপট্টিতে অবস্থিত দৈনিক বার্তা কমপ্লেক্স। এই ভবনটি যখন তৈরি করা হয় সেসময় সেটিই ছিল সবচেয়ে আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন ভবন। ফলশ্রুতিতে গ্রামীন ফোন সহ বড় বড় ব্যাংক, বেসরকারি ইউনিভার্সিটি সেখানে নিজেদের কার্যক্রম চালানো শুরু করে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান হিসেবে আমরা বার্তা কমপ্লেক্স ভবন করেছিলাম।
তিন পুরুষ ধরে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত থাকা বর্তমান রেডার সভাপতি জানান, দশ তলার চার ইউনিট করে দুইটি ভবন আলুপট্টি ও সাগরপাড়ায় তৈরি করা হয়েছে তাদের মাধ্যমে। প্রতিষ্ঠানটির সকল প্রজেক্ট ‘ডিমা’ নাম দিয়ে করা। বর্তমানে চলমান রয়েছে কুমারপাড়া, আলুপট্টিতে তিনটি প্রজেক্ট। সামনে আরো তিনটি প্রজেক্ট আসছে যা আলুপট্টিতে কমার্শিয়াল প্রজেক্ট হবে, শেখ পাড়া ও উপশহরে হবে।
যারা কম দামে ফ্লাট বিক্রির কথা বলছেন তাদেরকে প্রত্যাখান করেন তৌফিকুর রহমান আরো বলেন, যারা রেডার সদস্য তাদের কিছু ব্যাবসায়িক নিয়ম রয়েছে। আমরা যদি দেখি সদস্যভূক্ত প্রতিষ্ঠানগুলো রেডা’র নিয়মের বাহিরে যাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগ থাকছে আমাদের। তিনি উদাহরন টেনে বলেন, একটি শার্ট ২০০ টাকাতে পাওয়া যায়, একই রকমের শার্ট ২০০০ টাকাতেও ব্রান্ডের দোকানে পাওয়া যায়। দুইশো টাকার গুনগত মান আর দুই হাজার জামার গুণগত মান এক হবে না। কোয়ালিটির একটা বিষয় রয়েছে। পরিমাণ দিয়ে বিচার করলে হবে না। আমাদের কার্যক্রমের সাথে এসব চটকদার বিজ্ঞাপন দাতাদের কাজের মান, ইঞ্জিনিয়ার সব কিছুতেই বিস্তর ফারাক রয়েছে। আমরা যারা রেডা’র অন্তভূক্ত আছি আমাদের জমির মালিক, ফ্লাটের ক্রেতা, এলাকা সর্বোপরি দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা আছে। একারণে বাংলাদেশে প্রচলিত সব নিয়ম কানুন মেনেই ব্যবসা পরিচালনা করছি।
পর্যটন নগরী গড়তে রেডা কতোটুকু ভূমিকা রাখতে পারছে এমন প্রশ্নে বর্তমান সভাপতি বলেন, রাজশাহীকে গ্রীন ক্লিন শিক্ষা নগরী হিসেবে সবাই জানে। এখন আমরা বর্তমান সিটি মেয়রের সুরে পর্যটন নগরী হিসেবে রাজশাহী প্রতিষ্ঠা হোক সেভাবেই আমাদের কার্যক্রম পরিচালিত করছি। আরডিএ, সিটি করপোরেশনের সাথে মিলে একটি তিলেত্তমা রাজশাহী নগরী সাজাতে রেডা সহযোগিতা চালিয়ে যাবে সবসময়।

 


আরোও অন্যান্য খবর
Paris