স্টাফ রিপোর্টার
পাঁচ বছর পর আগামী ২৯ জানুয়ারী রাজশাহী আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এই আগমনকে সামনে রেখে রাজশাহী জুড়ে শুরু হয়েছে সাজ সাজ রব। রাজশাহী মহানগরীসহ পুরো বিভাগের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলাগুলোতেও চলছে সাজ সজ্জার কাজ। সাজসজ্জার অংশ হিসেব রাজশাহী মহানগরীজুড়ে দেখা মিলছে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকান্ডের চিত্র সম্বলিত ব্যানার, ফেস্টুন ও তোড়ন। এছাড়াও বিভিন্ন পদধারী নেতাদের বড় বড় ব্যানার ও সরকারের উন্নয়নের চিত্র শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন মোড়ে, রাস্তার পাশের দেওয়াল ও গাছে গাছে।


প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে কেন্দ্র করে রাজশাহী মহানগরীর বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ চত্বরে শোভা পেয়েছে উড়ন্ত বেলুন। ব্যানার, ফেস্টুন ও তোড়ন ছাড়াও সেই উড়ন্ত বেলুনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানানো হচ্ছে সাদর আমন্ত্রণ। কেউ কেউ বলছেন, প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আকাশ ছোয়া ভালবাসার প্রতীক হিসেবেই এই ধরনের ভিন্ন মাত্রার আয়োজন। আ’লীগের কয়েকজন কর্মী এবিষয়ে মন্তব্য করতে গেয়ে বলেন। লাল রং হচ্ছে ভালবাসার একটি প্রতীক। তাই লাল রংয়ের উড়ন্ত বেলুন দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি অসীম ভালবাসার বিষয়টি তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে সমস্ত নগরীজুড়েই যেনো উৎসবের আমেজ বইতে শুরু করেছে। উড়ন্ত লাল রংয়ের বেলুন দিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে রাজশাহীর জনসভাতে স্বাগত জানানোর এই ধরনের ভিন্ন মাত্রার প্রস্তুতি নিয়ে অনেকের মুখেই শোনা গেছে রাসিক মেয়রের প্রশংসা।
এদিকে, এই জনসভাকে সাফল্যমন্ডিত করার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটনসহ মহানগর আ’লীগের নেতারা প্রতিদিন সকাল থেকে রাত্রি অবদি শহরের বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে সাধারণ মানুষের হাতে হাতে বিতরণ করছেন প্রচারমূলক লিফলেট। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে।
২৯ জানুয়ারি রাজশাহীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা’র বিশাল জনসভা সফল করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী জেলা ও মহানগরের জনসভা প্রস্তুত প্রচার উপ-কমিটির উদ্যোগে প্রচারপত্র বিলি করা হয়েছে। গতকাল ২২ জানুয়ারি দুপুরে রাজশাহী মহানগরীর নওদাপাড়া বাজার এলাকায় জনসাধারণের মাঝে প্রচারপত্র বিলি করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র জননেতা এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার, যুগ্ম সম্পাদক আহ্সানুল হক পিন্টু, জনসভা প্রস্তুত প্রচার উপ-কমিটির আহ্বায়ক ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহমেদ লিমন, শাহ মখদুম থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাদত আলী শাহু, রাজপাড়া থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আনসারুল হক খিচ্চু সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
এদিকে রাজশাহীতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা’র জনসভা সফল করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের উদ্যোগে গতকাল রবিবার সন্ধ্যা ৭টায় কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয় থেকে প্রচার মিছিল বের হয়। মিছিলটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিন শেষে দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। প্রচার মিছিল শেষে সেখানে পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামাল এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। পথসভায় বক্তারা বলেন, আগামী ২৯ জানুয়ারি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র জনসভা স্মরণকালের ইতিহাস হয়ে থাকবে। রাজশাহীবাসীর সৌভাগ্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা আমাদের মাঝে উপ¯ি’ত হয়ে তাঁর মূল্যবান বক্তব্য পেশ করবেন। রাজশাহীবাসীর উচ্ছ্বাস দেখে মনে হচ্ছে জনসভা স্থলে লক্ষ লক্ষ মানুষ সমাবেত হবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ আ’ লীগ, রাজশাহী মহানগরের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, সৈয়দ শাহাদত হোসেন, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, ডাঃ তবিবুর রহমান শেখ, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, আহসানুল হক পিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহমেদ লিমন, দপ্তর সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম বুলবুল, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু প্রমুখ্য।
অপরদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজশাহীতে আগমন উপলক্ষ্যে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পদ্মা ও মল্লিকা ক্লাস্টারের সিডিসি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোববার বেলা ১২টায় মেট্রোপলিটন কলেজ অডিটোরিয়ামে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী পাঁচবছর পর রাজশাহীতে আসছেন। এ মেয়াদে দেশে নানা উন্নয়ন কার্যক্রম বাস্তবায়িত হয়েছে। নানা বাঁধা পেরিয়ে নিজের টাকায় পদ্মা সেতু নির্মিত হয়েছে। মেট্রোরেল চালুর মধ্যে দিয়ে ইতোমধ্যে আরেকটি স্বপ্ন বাস্তবায়ন হয়েছে। চলতি বছরেই বঙ্গবন্ধু রেল সেতু শেষ হলে উত্তরাঞ্চলের যোগাযোগ ব্যবস্থায় আর একটি নতুন মাত্রা যোগ হবে। এরমধ্যে দিয়ে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঘটবে। তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের কল্যানে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য নেতৃত্বে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন দৃশ্যমান হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতিশীল নেতৃত্বে দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নই নয়; নারীর ক্ষমতায়ন করা হয়েছে। নারীরা সর্বক্ষেত্রে এগিয়ে গেছে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ পদে আসীন হয়েছে। মেয়র আরো বলেন, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্পটির নামকরণ করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজশাহীতে এই প্রকল্পের মাধ্যমে গৃহিত তহবিল দিয়ে ব্যাংক গঠন কাজ এগিয়ে চলেছে। যার মাধ্যমে সিডিসির সদস্যরা উপকৃত হবেন। ইউএনডিপির এলইউপিসি প্রকল্পের মেয়াদ আরও বৃদ্ধি হচ্ছে। এর মাধ্যমে আগামীতে আরও কাজ করার সুযোগ সৃষ্টি হবে। এসএমই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে নারী উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে কাজ করছে সরকার। রাজশাহী মহানগরীর উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২ হাজার ৯শ কোটি টাকার বৃহৎ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন। আগামী ২৯ জানুয়ারি রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা মাঠের জনসভায় উপস্থিত হয়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাতে চাই।
পুঠিয়া আ’লীগের বর্ধিত সভা


প্রেস বিজ্ঞপ্তি : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা‘র দূরদর্শী, সুদক্ষ ও বলিষ্ঠ নেতৃতে বাংলাদেশের সর্বক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়ন দৃশ্যমান হয়েছে।’ আগামী ২৯ জানুয়ারি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা‘র রাজশাহীতে বিশাল জনসভা সফল করার লক্ষ্যে গতকাল রবিবার বিকেলে পুঠিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। পুঠিয়া পি.এন উচ্চ বিদ্যালয়ে এই বর্ধিত সভার আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, বাংলাদেশের মানুষের আশা-ভরসার শেষ আশ্রয়স্থল, সফল রাষ্ট্রনায়ক মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫ বছর পর রাজশাহীতে আসছেন। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে রাজশাহী এসেছিলেন, আবার ২০২৩ আসে আসছেন। এই ৫ বছরে বাংলাদেশের ভাগ্যাকাশে এতো ব্যাপক পরিবর্তন ঘটেছে যে, এবারে প্রধানমন্ত্রীর আগমনে নেতাকর্মীদের মাঝে ভিন্ন আমেজ, ভিন্ন উৎসাহ ও উদ্বীপনার সৃষ্টি করেছে। এই ৫ বছরে দেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও ভাগ্যের ইর্ষনীয় পরিবর্তন ঘটেছে। পুঠিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ নজরুল ইসলমের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বেগম আখতার জাহান, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অনিল কুমার সরকার, রাজশাহী-৫ (পুঠিয়া-দুর্গাপুর) আসনের সংসদ সদস্য ডা. মনসুর রহমান। প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল ওয়াদুদ দারা। পুঠিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহরিয়ার রহিম কনকের সঞ্চালনায় জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাকিরুল ইসলাম সেন্টু, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বাঘা উপজেলা চেয়ারম্যান লায়েব উদ্দিন লাবলু, পুঠিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান জিএম হিরা বাচ্চু প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সভায় পুঠিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।
জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের প্রচারপত্র বিতরণ
প্রেস বিজ্ঞপ্তি : প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা‘র জনসভা সফল করার লক্ষ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রচার পত্র বিতরণ করেছেন রাজশাহী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল। গতকাল ২২ জানুয়ারী দুপুরে নগরীর কোর্ট চত্বরে রাজশাহী মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের বিশাল জনসভা সফল ও জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচারপত্র বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এবং রাজশাহী জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল। প্রচারপত্র বিতরণকালে কোর্ট এলাকায় অ্যাডভোকেট সহ জনসাধারণকে ২৯ জানুয়ারীর বিশাল জনসভায় উপস্থিত হওয়ার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল। এসময় উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, রেজাউল ইসলাম বাবুল, ডাঃ তবিবুর রহমান শেখ, বদরুজ্জামান খায়ের ও যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক আহসনুল হক পিন্টু।

তানোরে আ’লীগের বর্ধিতসভা

আলিফ হোসেন, তানোর : রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীর আগমণ ঘিরে নতুন রুপে সেজেছে মহানগরী ও আশপাশের উপজেলা সদরসহ পুরো এলাকা। দীর্ঘ প্রায় ৫ বছর পর আগামী ২৯ জানুয়ারী রাজশাহী আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর আগমনকে সামনে রেখে রাজশাহী অঞ্চল জুড়ে শুরু হয়েছে সাজ সাজ রব। তানোর উপজেলার প্রধান প্রধান সড়কে তোরণ নির্মাণ ও ব্যানার ফেষ্টুন দিয়ে বর্নিল সাজে সাজানো হয়েছে। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর আগমণ সফল করার লক্ষে তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে বিশেষ বর্ধিত আয়োজন করা হয়েছে।
জানা গেছে, গতকাল ২২ জানুয়ারী উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের উদ্যোগে উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রদীপ সরকারের সঞ্চালনায় এবং সভাপতি মাইমুল ইসলাম স্বপনের সভাপতিত্বে গোল্লাপাড়া বাজার আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে আয়োজিত বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংসদ প্রতিনিধি ও উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না। অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শরিফ খাঁন, মুন্ডুমালা পৌর আওয়ামী লীগের সম্পাদক আমির হোসেন আমিন, উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান আবু বাক্কার ও সোনীয়া সরদার, কামারগাঁ ইউপি চেয়ারম্যান ফজলে রাব্বী ফরহাদ,বাধাইড় ইউপি চেয়ারম্যান আতাুর রহমান, পাঁচন্দর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন, চাঁন্দুড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান, তারন্দ ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কাশেম, প্রধান শিক্ষক আসলাম উদ্দিন ও জিল্লুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সচিব রামিল হাসান সুইট,মমিনুল ইসলাম মমিন ও মিজানুর রহমান প্রমুখ। এবিষয়ে সাংসদ প্রতিনিধি ও উপজেলা চেয়ারম্যান লুৎফর হায়দার রশিদ ময়না বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আগমণে রাজশাহীর ইতিহাসে সব চাইতে সর্ববৃহত মানুষের উপস্থিতি ঘটানো হবে। তিনি বলেন, সাংসদ আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরীর নেতৃত্বে তানোর-গোদাগাড়ী থেকে কমপক্ষে এক লাখ নেতা ও কর্মী-সমর্থক জনসভায় অংশগ্রহণ করবেন বলে তারা আশাবাদী। তিনি বলেন, সেই লক্ষেই তাদের প্রস্তুতি চলছে।

তানোরে আলোচনা সভা


তানোর প্রতিনিধি : আগামী ২৯ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রীর রাজশাহীতে জনসভা সফল করতে তানোরে সাবেক সভাপতি সাবেক মেয়র গোলাম রাব্বানী ও আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার সন্ধ্যার পরে উপজেলার তালন্দ ইউনিয়ন (ইউপির) দেবিপুর মোড়স্থ দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় সভাটি। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তানোর গোদাগাড়ী আসনের এমপি প্রার্থী গোলাম রাব্বানী। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক সম্পাদক প্রভাষক আব্দুল্লাহ আল মামুন, তালন্দ ইউপি চেয়ারম্যান ইউপি আওয়ামীলীগ সভাপতি নাজিম উদ্দিন বাবু, মাহবুর রহমান প্রমুখ।