সৌদি আরব তেল উৎপাদন বৃদ্ধির কথা ভাবছে গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন প্রতিবেদন দেশটির জ¦ালানি মন্ত্রী আবদুল আজিজ বিন সালমান সোমবার অস্বীকার করেছেন। মন্ত্রীর উদ্ধৃতি দিয়ে সৌদি প্রেস এজেন্সি (এসপিএ) জানায়, ‘ওপেক প্লাস-এর ২০২৩ সালের শেষ নাগাদ পর্যন্ত প্রতিদিন ২ মিলিয়ন ব্যারেল বিদ্যমান উৎপাদন হ্রাস অব্যাহত থাকবে এবং যদি সরবরাহ এবং চাহিদার ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য উৎপাদন হ্রাস করে আরও ব্যবস্থা নেয়ার প্রয়োজন হয় তবে আমরা সর্বদা হস্তক্ষেপ করতে প্রস্তুত আছি।’এসপিএ রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, দেশটি অর্গানাইজেশন অফ পেট্রোলিয়াম এক্সপোর্টিং কান্ট্রিজ (ওপেক) এর অধীনে অন্যান্য উৎপাদকদের সাথে প্রতিদিন ৫০০,০০০ ব্যারেল উৎপাদন বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনা করছে এই প্রতিবেদনগুলো তিনি অস্বীকার করেছেন। ১৩-সদস্যের ওপেক এবং এর ১০টি অ-সদস্য মিত্র, যা সম্মিলিতভাবে ওপেক+ নামে পরিচিত এই গ্রুপের বৈঠকের আগে কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা করেনি বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেছেন। পরবর্তী ওপেক+ সভা ৪ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করা হচ্ছে। গত ৫ সেপ্টেম্বর, ওপেক+ প্রতিদিন ১০০,০০০ ব্যারেল তেলের উৎপাদন পরিমিতভাবে কমাতে সম্মত হয়। এক মাস আগে তারা যে বৃদ্ধি অনুমোদন করেছিল তা ফিরিয়ে দেয় এবং ব্যারেল প্রতি প্রায় ১০০ মার্কিন ডলার মূল্যের স্তর রক্ষা করার জন্য গ্রুপ দৃঢ় অবস্থান নেয়। সেপ্টেম্বরে সৌদি মন্ত্রী বলেন, উৎপাদন কমানোর পেছনে কারণ ছিল বাজারের স্থিতিশীলতা বজায় রাখা।