চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাসুদ রানা (৩৫) নামের একজন প্রতিষ্ঠিত এনজিও মালিক, ব্যবসায়ী ও তরুণ উদ্যোক্তাকে অবৈধ পিস্তল ও গুলিসহ আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) বেলা ১১টার দিকে গোমস্তাপুর উপজেলার চৌডালা সেতুর টোলঘরের সামনে থেকে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত মাসুদ রানা শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট ইউনিয়নের শিবনারায়নপুর গ্রামের মৃত ফজলুর রহমানের ছেলে।
গোমস্তাপুর থানা পুলিশের একটি দল টোলঘরে তল্লাশি চৌকি স্থাপন করে তাকে আটক করে। এসময় মাসুদ রানার কাছ থেকে একটি আমেরিকার তৈরি সচল ৭.৬৫ মডেলের পিস্তল, ৪ রাউন্ড গুলি ও একটি সিলভার রঙয়ের মোটরসাইকেল জব্দ করে পুলিশ। পরে আটককৃত মাসুদ রানাকে আদালতে সোপর্দ করেছে গোমস্তাপুর থানা পুলিশ।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মাদকবিরোধী একটি অভিযানের অংশ হিসেবে চৌডালা সেতুর টোলঘরে তল্লাশি চৌকি স্থাপন করে গোমস্তাপুর থানার একটি দল। এতে সেতু দিয়ে চলাচল করা বিভিন্ন যানবহন তল্লাশি করে পুলিশ। এসময় বেলাল বাজারের দিক থেকে আসা একটি দ্রুতগামী মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে পুলিশ। পরে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নানারকম অসংলগ্ন কথাবার্তা বলেন আটককৃত মাসুদ রানা। এসময় তার দেহ তল্লাশি করে লাইসেন্সবিহীন অবৈধ একটি অস্ত্র উদ্বার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় গোমস্তাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) অমিত দেবনাথ বাদি হয়ে এনিয়ে অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এবিষয়ে এসআই অমিত দেবনাথ জানান, মাসুদ রানা তার কাছ থেকে উদ্ধারকৃত অস্ত্রের কোন লাইসেন্স বা কাগজপত্র দেখাতে পারেনি। যা বাংলাদেশের অস্ত্র আইনে সম্পূর্ণভাবে অবৈধ ও অপরাধ। গোমস্তাপুর থানার ওসি মাহবুবুর রহমান বলেন, অবৈধ অস্ত্র ও গুলিসহ মাসুদ রানা নামের একজনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে। পরে আসামী মাসুদ রানাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, অস্ত্রসহ আটককৃত মাসুদ রানা মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থা নামের একটি এনজিও-র ব্যবস্থাপনা পরিচালক। এছাড়াও তিনি এই এনজিওর টাকায় বিভিন্ন ২৩টি নিত্যপন্যদ্রব্য উৎপাদন করে বাজারজাত করছেন। জেলাজুড়ে এনজিওটির প্রায় ৪০টি শাখায় ক্ষুদ্র ঋণের কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। অভিযোগ রয়েছে, ক্ষুদ্র ঋণের মাধ্যমে গ্রাহকদের কয়েকশ কোটি টাকা সংগ্রহ করে নানারকম ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করলেও গ্রাহকদের জামানত ফেরত দিতে গত কয়েকমাস ধরে নানারকম টালবাহানা করে আসছে আটককৃত মাসুদ রানার এনজিও মধুমতি সমাজ উন্নয়ন সংস্থা।