সাফজয়ী নারী ফটবল দলের দুই সদস্য কৃষ্ণা রানী সরকার ও শামসুন্নাহার সিনিয়রের ডলার চুরির অভিযোগ উঠেছে। তবে চুরি হয়নি বলে দাবি করেছে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। গতকাল বৃহস্পতিবার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নির্বাহী পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন মো. কামরুল ইসলাম সই করা এক বিবৃতিতে এ দাবি করা হয়। এর আগে নেপালে ইতিহাস গড়ে বুধবার দুপুরে ঢাকার হযরত শাহজালাল (রাহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পা রাখে সাবিনার নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। বিমানবন্দরে সাফজয়ী বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের তিন সদস্য কৃষ্ণা রানি সরকার, সানজিদা আক্তার ও শামসুন্নাহারের লাগেজ ভেঙে ডলার ও টাকা চুরি হয়েছে।

 

তিন জনের প্রায় দুই লাখ টাকার মতো খোয়া গেছে। এ ছাড়া দলের অন্যান্য সদস্যের লাগেজও পাওয়া গেছে ভাঙা অবস্থায়। সকালে ফুটবলারদের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিবৃতি দেয় বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। এতে বলা হয়, সাফ মহিলা ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২২ বিজয়ী বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল গত ২১ সেপ্টেম্বর দুপুর ১টা ৪২ মিনিটে বিজি-৩৭২ ফ্লাইটে কাঠমুন্ডু থেকে ঢাকায় অবতরণ করে। পরবর্তীতে বাফুফের প্রটোকল প্রতিনিধি ইমরান, মিডিয়া এবং বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই ফুটবল দলের দুই জন নারী সদস্যের ব্যাগ (হোল্ড ব্যাগেজ) থেকে অর্থ (ডলার এবং টাকা) চুরির অভিযোগ পাওয়া যায়। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ সিসিটিভি ফুটেজ পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ করে ঘটনার সত্যতা প্রতীয়মান হয়নি মর্মে নিশ্চিত হয়েছে। সিসিটিভি বিশ্লেষণের তথ্য দিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়, দুপুর ১টা ৪২ মিনিটে বিমান ল্যান্ডিং করে। ১টা ৫৮ মিনিটে ব্যাগেজ মেক আপ এরিয়ায় ট্রলি আসে।

 

১টা ৫৯ মিনিটে ব্যাগেজ মেক আপ এরিয়ায় প্রথম লাগেজ ড্রপ হয়। ২টায় কনভেয়ার বেল্ট ৮ এ প্রথম লাগেজ ড্রপ হয়। ২টা ৮মিনিটে ব্যাগেজ মেক আপ এরিয়ায় শেষ ব্যাগেজ ড্রপ হয়। পরে বাফুফে প্রটোকল প্রতিনিধি ও দুজন টিম অফিসিয়াল কর্তৃক লাগেজ ট্যাগ চেক করে সম্পূর্ণ অক্ষত এবং তালাবন্ধ অবস্থায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে লাগেজগুলো বুঝে নিয়ে বিমানবন্দর ত্যাগ করেন। যাত্রীসেবার মান উন্নয়ন, নিশ্চিতকরণ এবং দেশের ভাবমূর্তি সমুন্নত রাখতে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বদ্ধপরিকর বলে দাবি করা হয় বিবৃতিতে। এর আগে বাফুফে থেকে জানা যায়, বিমানবন্দরে ফুটবলার কৃষ্ণা রানী সরকারসহ কয়েকজনের ব্যাগ থেকে নগদ অর্থ চুরি হয়। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন কৃষ্ণা।

 

তার ব্যাগে থাকা প্রায় ৯০০ ডলার ও ৫০ হাজার বাংলাদেশি টাকা চুরি হয়েছে। অর্থাৎ প্রায় দেড় লাখ টাকা হারিয়েছেন ফাইনালে জোড়া গোল করা এ ফুটবলার। মুঠোফোনে বিষয়টি নিশ্চিত করেন আরেক ফুটবলার তহুরা খাতুন। শুধু কৃষ্ণার নয়, বরং ডলার ও টাকা চুরি হয়েছে সানজিদা ও শামসুন্নাহার সিনিয়রেরও। এই ব্যাপারে তহুরা বলেন, কৃষ্ণা আর সানজিদার ৯০০ ডলার একসাথে ছিল। বড় শামসুন্নাহারের ৪০০ ডলার। আর কৃষ্ণার ৫০ হাজার টাকা ছিল বাংলায়। এ ছাড়া ঋতুর (ঋতুপর্ণা) লাগেজ টানাটানি করে নষ্ট করে দিয়েছে। এরকম ব্যাগ টানাটানি করেছে কয়েকজনের। একটা হ্যান্ড লাগেজ খুলে উল্টিয়ে রেখে দিয়েছে। এরকম ঘটনা আগে কখনও ঘটেনি জানিয়ে শামসুন্নাহার বলেন, আমার ৪০০ ডলার হারাইছে। সাথে ছিল কৃষ্ণার ৯০০ ডলার আর ৫০ হাজার টাকা। এটাতো অবাক হওয়ার মতো ঘটনা। এর আগে কখনও হয়নি এরকমটা। এবারই হইছে আমার সাথে।-এফএনএস