আককাস আলী
এবার নওগাঁয় ৮শ ২৪টি পূজা মণ্ডপে শারদীয় দুর্গা পূজা অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি শেষের দিকে। পূজা মণ্ডপগুলোতেকে কত সুন্দর ভাবে প্রতিমা তৈরি করতে পারে তার জন্য ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পিরা। ইতিমধ্যে কিছু কিছু পূজা মন্দিরে প্রতিমার অবকাঠামোগত মাটির কাজ শেষ পর্যায়ে। তবে এই প্রতিমাগুলোতে রং এর কাজ করা হবে পূজার কিছুদিন পূর্বে।

জানা গেছে, নওগাঁর ১১উপজেলা ও ৩টি পৌরসভায় অনুষ্ঠিত হবে এই উৎসব। চলতি বছর ৮শত ১৬টি মন্ডবে এই পূজা অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ১ অক্টোবর দূর্গা পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। ৫ অক্টোবর বিজয়া দশমীর মধ্য দিয়ে ৫দিনব্যাপী এই উৎসব শেষ হবে। এবছর জেলার বেশ কয়েকটি মন্দিরে শতাধিক প্রতিমার মন্ডপ তৈরী করছেন পুজা আয়োজকরা। এদের মধ্যে জেলা সদরের আলুপট্টি, কালীতলা, পুরাতন ডিসি অফিস, মান্দার মৈনব, দেলুয়াবাড়ী, রাণীনগর উপজেলার হাটখলা অন্যতম। অন্য বছরের তুলনায় এই বছরও সকল বিপদ থেকে বিশ্ববাসীকে রক্ষা করার লক্ষ্যে বিশেষ প্রার্থনার জন্য পূজামন্ডপগুলোকে একটু বিশেষ ভাবে সাজানো হচ্ছে। অন্যদিকে কারিগরদের কন্ঠে বাজছে হতাশার কথা। প্রতিটি জিনিসের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে কারণে প্রতিমা তৈরির কারিগরদের পারিশ্রমিক অনেকটাই কমেছে। কমে এসেছে প্রতিমা তৈরি সংখ্যাও।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ নওগাঁ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক বিভাস মজুমদার গোপাল বলেন, নওগাঁয় সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ন পরিবেশে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। আমরা উপজেলা পর্যায়ের সকল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় করে প্রতিটি পূজা মন্ডপে শান্তিপূর্ন ও সুন্দর পরিবেশে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে যাবতীয় নিদের্শনা প্রদান করেছি। আমি শতভাগ আশাবাদি নওগাঁর সকল পূজা মন্ডপে সকলের সার্বিক সহযোগিতায় এবারও সুষ্ঠ ভাবে পূজা উদযাপিত হবে।

পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাশিদুল হক বলেন, ইতিমধ্যেই পূজা উদযাপন পরিষদের সকল নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সম্পন্ন করেছি। পূজাকে ঘিরে নওগাঁ শহর ও অন্যান্য উপজেলাতেও চারস্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। প্রতিটি পূজা মন্ডপে পোষাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোষাকের পুলিশসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নিরাপত্তা প্রদানের কাজে নিয়োজিত থাকবে। পূজাকে ঘিরে যেন অতিরিক্ত মাদকদ্রব্যের ব্যবহার না হয় সেদিকেও বিশেষ নজরদারী রাখা হবে।

এছাড়াও শহরের যানজট নিরসনে বিশেষ বিশেষ জায়গায় অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য নিয়োজিত থাকবে। ধর্ম যার যার কিন্তু উৎসব সবার এই কথাকে সামনে রেখে বিগত বছরের তুলনায় চলতি বছর নওগাঁর প্রতিটি পূজা মন্ডপে কোন প্রকারের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই দুর্গোৎসব সুষ্ঠ, সুন্দর, শান্তিপূর্ন ও সুন্দর পরিবেশে উদযাপনের লক্ষে পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান বলেন, সুন্দর ও উৎসবমুখর পরিবেশে পূজা উদযাপনের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই দুর্গোৎসব অনুষ্ঠিত হওয়ার লক্ষ্যে পুলিশ প্রশাসন, পূজা উদযাপন পরিষদসহ সংশ্লিষ্ট সকল শ্রেণির ব্যক্তিদের সঙ্গে মতবিনিময় করা হয়েছে। পূজাকে ঘিরে নওগাঁয় কোন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টির কোন সুযোগ নেই। এছাড়া সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিটি পূজা মন্ডবে অনুদানও প্রদান করা হয়েছে। আমি আশাবাদি এবার নওগাঁবাসী ব্যতিক্রমী এক দূর্গোৎসব উদযাপন করবেন।