চারঘাট প্রতিনিধি
রাজশাহীর চারঘাটে র‌্যাব পরিচয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগে কথিত এক সাংবাদিকের নাম উল্লেখ পূর্বক অজ্ঞাত আরো পাঁচ ব্যক্তির নামে চারঘাট মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। চারঘাট উপজেলার মেরামাতপুর গ্রামের ভুক্তভোগী গুড় ব্যবসায়ী ইব্রাহিম আলী (৫০) বাদী হয়ে বুধবার দিবাগত রাতে এই মামলা দায়ের করেন।

জানা যায়, মামলায় তারিক হোসেন নামে একজন কথিত সাংবাদিককে প্রধান আসামী করা হয়েছে। তিনি উপজেলার পৌরসভাধীন মেরামতপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। তিনি ফেসবুকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে মাঝে মাঝে লেখালেখি করতেন। এছাড়াও মামলার এজাহারে প¦ার্শবর্তী বাঘা উপজেলার রবিউল ইসলাম নামে আরেক কথিত সাংবাদিকের নাম উল্লেখ করা আছে।

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাত ১১ টার দিকে তারিক হোসেনসহ পাঁচ ব্যক্তি গুড় ব্যবসায়ী ইব্রাহিম আলীর বাড়িতে যান। সেখানে তারিক তাঁর সাথের চার ব্যক্তিকে র‌্যাবের সদস্য বলে পরিচয় দিয়ে বলেন, ইব্রাহিমের নামে ভেজাল গুড় তৈরির মামলা রয়েছে। র‌্যাব তাকে আটক করতে এসেছে সেসময় স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে পাঁচ লক্ষ টাকা দিলে ইব্রাহিমকে আটক করা হবেনা বলে তারা জানায়।

এতে ইব্রাহিম আলী ও তাঁর পরিবার ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে পড়ে পড়ে। তাঁরা কিছু টাকা কমানোর জন্য বলে। এ সময় তারিক ভূয়া র‌্যাব সদস্যদের সাথে এবং ফোনে এক অজ্ঞাত এক ব্যক্তির সাথে পরামর্শ করে দুই লক্ষ টাকা নিতে রাজি হয়। ইব্রাহিম আলীর স্ত্রী জরিনা বেগম ও প্রতিবেশীরা দুই লক্ষ টাকা প্রদান করলে অভিযুক্তরা তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরে বিষয়টি চারিদিকে জানাজানি হলে ইব্রাহিম আলী জানতে পারেন ওই ঘটনায় অংশগ্রহণকারী ব্যক্তিরা কোনো আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য না। পরদিন তারিক হোসেন তাঁর সাথে রবিউল ইসলাম নামে আরেক সাংবাদিক ছিল বলে বাদীকে জানায়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে চারঘাট মডেল থানার ওসি মাহবুবুল আলম বলেন, র‌্যাব পরিচয়ে চাঁদাবাজির ঘটনায় একজনের নাম উল্লেখপূর্বক ও এজাহারে জড়িত আরেকজনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।