স্টাফ রিপোর্টার
রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) হঠাৎ করেই ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। এরই মধ্যে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে রাকিবুল ইসলাম (২২) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া বর্তমানে আরও ২৫ জন রোগী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এর আগের দিন এই সংখ্যা ছিল ১৯ জন। অর্থাৎ ২৪ ঘণ্টায় রোগী বেড়েছে ৬ জন।
রামেক হাসপাতালের ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের (আইসিইউ) প্রধান সহকারী অধ্যাপক ডা. আবু হেনা মোস্তফা কামাল জানান, মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওই যুবকের মৃত্যু হয়। রাকিবুল পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে চাকরি করতেন। ডেঙ্গুর কারণে মাত্রাতিরিক্ত জ্বরসহ কিডনির কার্যক্ষমতা কমে যাওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে রাকিবুল ইসলামকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি হয়। এরপর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরদিন দুপুর ২টার দিকে হাসপাতালের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছিল।

এদিকে রামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে ২৫ জন রেগী ভর্তি আছেন। তারা চিকিৎসাধীন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৭ জন। আগের ডেঙ্গু রোগী ছিলেন ১৮ জন। সব মিলিয়ে বর্তমানে ২৫ জন ডেঙ্গো রোগী এখন চিকিৎসা নিচ্ছেন। এছাড়া গেল ডেঙ্গু আক্রান্ত হওয়ার পর ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৬ জন রোগী।

রামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে- হঠাৎ করেই বেড়েছে ডেঙ্গু রোগী সংখ্যা। আর অধিকাংশই আসছেন পাবনার রূপপুর ও ঢাকা থেকে। রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্তদের ৪টি ওয়ার্ডে রাখা হয়েছে। তবে চিকিৎসাধীন কোনো রোগীর অবস্থার অবনতি ঘটেলে তাকে দ্রুততার সাথেই আইসিইউতে স্থানান্তর করা হচ্ছে। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আক্রান্তরা বেশির ভাগ পাবনা ও ঢাকার। পাবনার ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের সবাইও সম্প্রতি ঢাকা ঘুরে এসেছেন। তবে রাজশাহী মহানগরীর বাসিন্দাদের এখন পর্যন্ত কেউ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হননি। এ ব্যাপারে সতর্ক রয়েছেন বলে জানান রামেক হাসপাতালের পরিচালক।