স্টাফ রিপোর্টার
রাজশাহীতে দুই সাংবাদিককে হত্যা প্রচেষ্টা মামলাটি পুলিশের কাছ থেকে সরিয়ে র‌্যাবকে দায়িত্ব দেয়ার দাবি জানিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় নগরীর সাহেব বাজার জিরোপয়েন্টে রাজশাহী টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন-আরটিজেএ আয়োজিত মানববন্ধন থেকে এই দাবি তোলা হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দুই সাংবাদিকের ওপর বর্বোরচিত হামলা ঘটনার মামলা দায়েরের প্রায় ১৫দিন হতে চললো। কিন্তু উচ্চ আদালত আসামীদের জামিন আবেদন ফেরত দেয়ার পরও আসামীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। মামলার কোনো অগ্রগতিও নেই। পুলিশের এমন নিস্ক্রিয়তা সাধারণ মানুষের মাঝে নানা প্রশ্নে জন্ম দিয়েছে। সারাদেশে সাংবাদিক সংগঠনগুলো ধারাবাহিক আন্দোলন করে যাচ্ছে। কিন্তু পুলিশের টনক নড়ছে না।

তারা আরো বলেন, আরএমপি কমিশনারের নানা ভাল কাজের সাথে সাংবাদিকরা ছিলেন। কিন্তু সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালিয়ে হত্যার প্রচেষ্টা করা হয়েছে। মামলাও হয়েছে। কিন্তু তিনি রহস্যজনক কারণে এখনো নীরব রয়েছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজশাহীতে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে হামলাকারীদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু এরপরও পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ। তাই অবিলম্বে মামলাটি আরএমপি থেকে র্যাবের কাছে হস্তান্তরের দাবি জানান তারা।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মেহেদী হাসান শ্যামল, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব রাশেদ রিপন, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক তানজিমুল হক, দৈনিক সোনালী সংবাদের সম্পাদক লিয়াকত আলী, দৈনিক সোনার দেশের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আকবারুল হাসান মিল্লাত, সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজনের সভাপতি আহমেদ সফিউদ্দিন, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, নারীনেত্রী সেলিনা বেগম, বাংলাদেশ ফটোজার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন রাজশাহী শাখার সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ প্রমুখ।

উল্লেখ্য, গত ৫ সেপ্টেম্বর পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-বিএমডিএ’ নির্বাহী পরিচালক আব্দুর রশিদের নির্দেশে এটিএন নিউজের রিপোর্টার বুলবুল হাবীব ও ক্যামেরাপার্সন রুবেল ইসলামের ওপর হামলা চালিয়ে রক্তাক্ত করা হয়। রুবেল ইসলামের অবস্থা এখনো গুরুতর। এঘটনায় নগরীর রাজপাড়া থানায় মামলা হয়েছে।