প্রেস বিজ্ঞপ্তি
ভাষাসৈনিক পরিবারের সদস্য এবং রাজশাহী প্রেসক্লাব ও জননেতা আতাউর রহমান স্মৃতি পরিষদের সভাপতি সাইদুর রহমানকে নিয়ে ফেসবুকে অপপ্রচার ও বিকাশ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ইস্যু নিয়ে জেলা আইনশৃঙ্খলা মিটিংয়ে আলোচনা হয়েছে। গতকাল রবিবার (১১ সেপ্টেম্বর) জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এই মিটিং হয়। সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল।

মিটিংয়ে পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সহঃ সভাপতি শাহীন আক্তার রেণী ও সব উপজেলার চেয়ারম্যানসহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। মিটিংয়ে সূচনা বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, রাজশাহীর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সন্তোষজনক। উন্মুক্ত আলোচনা সময় রাজশাহী প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইদুর রহমান বলেন, আমার বিকাশ একাউন্ট থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ থাকলেও জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ। ঘটনার দিন থানায় জিডি করতে গেলে ডিউটি অফিসার প্রতাপ আমার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন এবং “তুমি” বলে সম্বোধন করে জিডি নেননি। আমি ফিরে এসে ওসিকে বিষয়টি জানাই এবং তিনি আবার থানায় আসতে বলেন। পরে থানায় গিয়ে জিডি করি।

সাইদুর রহমান আরো বলেন, বিনোদপুর মণ্ডলের মোড় হাসিব ফটোকপি দোকান থেকে দুইবারে ২০ হাজার করে ৪০ হাজার এবং বানেশ্বরের একটি দোকান থেকে টাকা তুলে নেওয়া ব্যক্তিকে আমি শনাক্ত করেছি। থানায় জিডি করেছি। জিডি নম্বর ৪৮৩, ১০/৯/২২। কিন্তু তদন্ত থেমে গেছে। আমার নামে অপপ্রচার চালাচ্ছে আদালতে সাজাপ্রাপ্ত এক আসামী। সুপার এডিট করে এই কাজ করছে সে। এসব ঘটনা শুনার পর রাজশাহী জেলা প্রশাসক আরএমপির প্রতিনিধিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলেন। এই দিন মিটিংয়ে রাজশাহীর আরো বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় এবং এরপর মিটিং সমাপ্ত হয়।