এফএনএস : দেশের মানিচেঞ্জারগুলোকে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ডলার সংগ্রহ করতে হবে। বাংলাদেশ ব্যাংক ওসব প্রতিষ্ঠানের কাছে কোনো ডলার বিক্রি করবে না। বর্তমানে খোলাবাজারে ডলার সঙ্কট থাকায় মানিচেঞ্জারগুলো গ্রাহকের চাহিদা অনুযায়ী নগদ ডলার দিতে পারছে না। সেজন্য মানিচেঞ্জারগুলো ব্যাংকগুলোর মতো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে ডলার সহায়তা চাইলেও বাংলাদেম ব্যাংক তা নাকচ করে দিয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, মুদ্রাবাজার স্বাভাবিক রাখতে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ২০২১-২২ অর্থবছরে রিজার্ভ থেকে ৭৬২ কোটি (৭.৬২ বিলিয়ন) ডলার বিক্রি করেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক সব মিলিয়ে চলতি ২০২২-২৩ অর্থবছরের দুই মাস ১ দিনে রিজার্ভ থেকে ২৫৬ কোটি ৯০ লাখ ডলার বিক্রি করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংক বৈদেশিক মুদ্রার বাজার স্থিতিশীল রাখতেই ব্যাংকগুলোকে ডলার সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। ভবিষ্যতেও ওই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে। মূলত কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে সরকারি পেমেন্ট বা বিভিন্ন প্রকল্পের আমদানি দায় মেটানোর জন্যই ওই সুবিধা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু ডলার সংকট মোকাবিলায় বাংলাদেশ ব্যাংক এই মুহূর্তে মানিচেঞ্জারগুলোকে ডলার সহায়তার কথা ভাবছে না।

এদিকে এ প্রসঙ্গে মানিচেঞ্জার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি একেএম ইসমাইল হক জানান, দেশে এখন ডলার সংকট চলছে। ফলে মানিচেঞ্জারগুলো অনেক গ্রাহকেই চাহিদা অনুযায়ী ডলার দিতে পারছে না। এমন সংকটের সময় কেন্দ্রীয় ব্যাংক যাতে ব্যাংকগুলোর মতো মানিচেঞ্জারের কাছ থেকে ডলার কেনে এবং প্রয়োজনে সরবরাহ করে ওই বিষয়ে একাধিকবার চিঠি দেয়া হয়েছে এবং ও সরাসরি বৈঠকেও ওই প্রস্তাব তুলে ধরা হয়েছে। অন্যদিকে এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, রিজার্ভ থেকে এই মুহূর্তে মানিচেঞ্জারগুলোকে ডলার সহায়তা করা সম্ভব নয়। যেহেতু চেঞ্জারগুলো বেশিরভাগ সময় খোলাবাজারে ডলারসহ বৈদেশিক মুদ্রা বিক্রি করে থাকে। তাই তাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ডলার সংগ্রহ করতে হবে।