স্টাফ রিপোর্টার, বাঘা : রাজশাহীর বাঘায় জমি নিয়ে মারামারিতে ১০ জন আহত হয়েছে। গত বৃহম্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের পারসাওতা বিনোদপুর গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটেছে। এ ঘটনায় রাতে পৃথক দুটি অভিযোগ করা হয়েছে।

জানা যায়, উপজেলার মনিগ্রাম ইউনিয়নের পারসাওতা বিনোদপুর গ্রামের আহাদ আলীর ছেলে আশরাফ আলী ও সাহাদত হোসেনের ছেলে আয়নাল হকের মধ্যে সাড়ে ১২ শতাংশ জমির অংশ নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে দ্বন্দ্ব চলছিল। এই জমি নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে বিনোদপুর বাজারে আশরাফ আলী ও আয়নাল হকের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে উভয়ে উত্তেজিত হয়ে পড়ে। এতে উভয়ের পক্ষের লোকজন বাঁশের লাঠি ও হাতুড়ি নিয়ে একে অপরের মধ্যে মারামারি শুরু হয়। এতে আয়নাল হকের পক্ষে আহত হয়েছেন তার ভাই জয়নাল হক, নুরুল ইসলাম ও ভাতিজা সোহাগ হোসেন। এ ঘটনায় রাতে পৃথক দুটি অভিযোগ করা হয়েছে।

আশরাফ আলীর পক্ষে আহত হয়েছেন তিনি নিজে ও তার ছেলে নুর হোসেন, নয়ন হোসেন, ভাতিজা হাফিজুল ইসলাম, রাকিবুল ইসলাম, সাইদার রহমান। তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্রে ভর্তি করা হয়। এরমধ্যে জয়নাল হক ও নুরুল ইসলামের অবস্থা বেগতিক দেখে দায়িত্বপ্রাপ্ত তাদের চিকিৎস রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। তবে আশরাফ আলী ও আয়নাল হক তারা পরস্পর চাচাত ভাই বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে আয়নাল হক বলেন, পৈতিক সূত্রে আমি সাড়ে ১২ শতাংশ জমি পাব। ৫ শতাংশ জমি বুঝে পেলেও বাঁকি জমি বুঝে পায়নি। বিষয়টি নিয়ে আমার চাচাত ভাইকে অবগত করলে তারা আক্রমণ করে। অপরদিকে আশরাফ আলীর ভাতিজা মজনু হোসেন বলেন, তারা জমির অংশ পাবে। কিন্তু যখন তখন এসে জমি ভাগ চায় এবং দখল করতে আসে। এ নিয়ে কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে মারামারি হয়েছে। বর্তমানে উভয় পক্ষের লোকজন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

বাঘা থানার ওসি সাজ্জাদ হোসেন বলেন, বিষয়টি জানার পর ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। পুলিশ চলে আসার পর তারা মারামারি করেছে। তবে উভয় পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ বিষয়ে পৃথকভাবে দুটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।