পাবনায় ছায়দার রহমান (৫০) নামের আওয়ামী লীগের এক নেতাকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শুক্রবার (০৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে সদর উপজেলার হেমায়েতপুর ইউনিয়নের চর বাঙ্গাবাড়িয়া গ্রামের নজুর মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। ছায়দার রহমান পাশের বাঙ্গাবাড়িয়া ইউনিয়নের কাবলীপাড়া মহল্লার মৃত হারান মালিথার ছেলে। তিনি পাবনা পৌর আওয়ামী লীগের কার্যকরী কমিটির সদস্য ছিলেন। ছায়দার রহমানের নাতি সাদ্দাম মোল্লা জানান, দুপুরে ফোন করে তিনি আমাকে ডাকেন। বাজারে কথা বলা শেষ করে জুমার নামাজ পড়ার জন্য বাড়ির দিকে রওনা হওয়ার ১০ মিনিটের মধ্যেই হত্যাকাণ্ড ঘটে। নিহতের স্ত্রী দিলরুবা জাহান বলেন, ছায়দার রহমানের সঙ্গে হেমায়েতপুর ইউপির সাবেক এক চেয়ারম্যানের জমি নিয়ে বিরোধ ছিল।

কয়েকদিন ধরে সাবেক ওই চেয়ারম্যান তাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিলেন। গত বৃহস্পতিবারও সাইদারকে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়। তিনি স্বামী হত্যার বিচার চান। পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট তসলিম হাসান খান সুমন জানান, জুমা নামাজের কিছুক্ষণ আগে নজুর মোড়ের একটি চায়ের দোকানে বসে ছিলেন ছায়দার। এ সময় কয়েক দুর্বৃত্ত ছায়দারকে গুলি করে হত্যা করে। তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে খুনিদের অবিলম্বে গ্রেফতদারের দাবি জানান তিনি। পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) মাসুদ আলম বলেন, ঘটনার সময় সবাই মসজিদে নামাজ পড়ায় ব্যস্ত ছিলেন। এ ফাঁকে কে বা কারা ছায়দার রহমানকে গুলি করে পালিয়ে যায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। তিনি আরও জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ ঘটনা ঘটতে পারে। তদন্ত ছাড়া এর চেয়ে বেশি কিছু বলা সম্ভব নয়।-এফএনএস