এফএনএস ; ভারতের টিভি রিয়েলিটি শো ‘লক আপ’। বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রাণৌত সঞ্চালিত এ শোয়ে অংশ নিয়ে নজর কাড়েন অঞ্জলি আরোরা। কয়েক দিন আগে এমএমএস কাণ্ডে নাম জড়িয়েছে তার। সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া এক ভিডিওতে অঞ্জলিকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা গিয়েছে বলে দাবি নেটিজেনদের। সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস হওয়া ভিডিওতে এক পুরুষের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা যায় এক নারীকে। নেটিজেনদের একাংশের দাবিÑএই নারী অঞ্জলি আরোরা আর পুরুষ সঙ্গীটি ‘লক আপ’ প্রতিযোগিতার বিজয়ী মুনওয়ার ফারুকি। অন্য অংশের দাবিÑ এ নারী অঞ্জলি আরোরা নন। এ নিয়ে নেটদুনিয়ায় সমালোচনার ঝড় বইছে। বিষয়টি নিয়ে কথা বলার জন্য ভারতীয় সংবাদমাধ্যম অঞ্জলির সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল। ওই সময়ে অঞ্জলি বলেছিলেনÑ‘আমরা কি এই প্রশ্ন এড়িয়ে যেতে পারি?’ এ নিয়ে কথা বলতে রাজি না হওয়ায় সমালোচনার আগুনে ঘি ঢালেন; অবশেষে মুখ খুললেন এই মডেল।

এক সাক্ষাৎকারে অঞ্জলি দাবি করেনÑভিডিওর মেয়েটি তিনি নন। তারপর কান্নায় ভেঙে পড়েন অঞ্জলি। তার ভাষায়Ñ‘‘আমি জানি না কেন আমার সঙ্গে ওরা এমনটা করছে। ওদেরও পরিবার আছে; আমারও আছে আর আমার পরিবার সব ভিডিও দেখে। আমি তো ওই ভিডিওতে নেই। আমি যেখানে নেই সেই ভিডিও কেন এত ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে! ইউটিউবে ভিউ পাওয়ার জন্য লিখে দেওয়া হচ্ছে ‘অঞ্জলি আরোরার এমএমএস’। আমারও তো পরিবার আছে, ছোট ভাই আছে যে এসব দেখে।’’ ভিডিওতে পরিকল্পিতভাবে অঞ্জলির মুখ বসানো হয়েছে বলে দাবি অঞ্জলির। এর আগেও এক ঘটনা ঘটানো হয়েছিল। সে সময় তার ভাই, বাবা-মা ও প্রেমিক সাইবার সেলে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। আবারো একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি। দ্রুত এসব বন্ধ হোক এমনটাই দাবি অঞ্জলির। রিয়েলিটি শো ‘লক আপ’-এ থাকাকালীন মুনওয়ার ফারুকির সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন অঞ্জলি। পরবর্তী আকাশ নামে এক ভিডিও ক্রিয়েটরের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান তিনি। কিছুদিন আগে এ বিষয়ে অঞ্জলি বলেনÑ‘আমার কাছে আকাশ বিশেষ কেউ। আমাদের মাঝে শক্ত বন্ধন রয়েছে। আমার হৃদয়ের বিশেষ জায়গায় তার অবস্থান। তবে এখনো আমাদের বাগদান সম্পন্ন হয়নি।’