রাজধানীর মোহাম্মদপুর কাটাসুরের একটি বাসায় খন্দকার আশিকুর রহমান (২৫) নামে এক যুবক গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার আগ মুহূর্তে স্ত্রীর হাত-পা বেঁধে এরপর নিজেই গলায় ফাঁস দেন বলে দাবি করেছেন তার স্ত্রী। গতকাল শুক্রবার এ তথ্য নিশ্চিত করেছে পুলিশ। এর আগে, গত বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে কাটাসুর ২ নম্বর গলি ৯৩/১ নম্বর বাসার নিচ তলায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর প্রতিবেশী ভাড়াটিয়ারা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক রাত ৩টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন। আশিকুর ঝালকাঠি সদর উপজেলার দিবাকরকাঠি গ্রামের খন্দকার এনায়েত হোসেনের ছেলে। রাজধানীতে মোটরসাইকেল রাইড শেয়ারিং করতেন তিনি। মোহাম্মদপুর থানার এসআই আলতাফ হোসেন বলেন, ৫ মাস আগে প্রেমের সম্পর্কে তানজিলা আক্তার মারিয়া নামে এক তরুণীকে বিয়ে করেন তিনি। -এফএনএস

 

এরপর থেকে ওই বাসায় ভাড়া থাকতেন। তার স্ত্রী বনানীতে একটি কুরিয়ার সার্ভিস কোম্পানীতে চাকরি করেন। তিনি আরও বলেন, তার স্ত্রী দাবি করছেন- পারিবারিক কলহের কারণে রাতে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে রুমের ভেতর আশিকুর তার (স্ত্রী) হাত-পা রশি দিয়ে এবং মুখ বালিশের কভার দিয়ে বাঁধে। এরপর তিনি নিজেই ফ্যানের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস দেন। পরে কৌশলে স্ত্রী নিজের হাত পায়ের বাঁধন খুলে তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় থেকে নিচে নামান। তার কান্নাকাটির শব্দ শুনে আশেপাশের লোকজন ছুটে আসেন। তখন প্রতিবেশীরাই তাকে হাসপাতলে নিয়ে যান। এসআই আলতাফ হোসেন বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত তার পরিবারে কেউ কোনো অভিযোগ করেননি। তবে বিস্তারিত তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। প্রাথমিক তদন্তে এটি আত্মহত্যা বলেই মনে হচ্ছে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।