স্টাফ রিপোর্টার : মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় রাজশাহী মহানগরীতে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে উদ্যোগ নিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে কমানো হলো নগরীর সড়কের আলোকায়ন। নগরীর রাস্তাসমূহের সড়কবাতির প্রতিটি পোলের পরিবর্ততে এখন একটির পর দুইটি পোলের বাতি বন্ধ থাকবে। এতে নগরীতে সড়কবাতির তিন ভাগের দুইভাগই বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে। শনিবার (৩১ জুলাই) রাত ৮টায় নগরীর তালাইমারি শহীদ মিনার সংলগ্ন বাদুড়তলা মোড়ে তালাইমারি-আলুপট্টি সড়কে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী এই কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। এরপরেই তালাইমারি থেকে আলুপট্টি সড়কের পাশাপাশি বিমান চত্বর থেকে বিহাস পর্যন্ত, বহরমপুর রেলক্রসিং হতে কাশিয়াডাঙ্গা সড়কের দৃষ্টিনন্দন সড়কবাতিগুলোর আলো কমানো হয়।

সড়কসমূহে বর্তমানে একটি করে পোলের পর দুটি করে পোলের বাতি বন্ধ রয়েছে। অথাৎ সড়কগুলোতে ২টি করে পোলের পর মাত্র একটি করে পোলে আলো জ্বলবে। বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী কার্যক্রমের উদ্বোধনকালে রাসিক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন সাংবাদিকদের বলেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারাবিশ্বে জ্বালালি সহ ডলারের সংকট তৈরি হয়েছে। এজন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সকল বিষয়ে সাশ্রয়ী হওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। এরই অংশ হিসেবে রাজশাহী শহরের সড়কগুলোতে যে চমৎকার সড়কবাতি রয়েছে, সেগুলোর একটির পরপর দুটি করে পোলের বাতির আলো বন্ধ করে দেওয়া হলো। এখন থেকে দুইটি পোলের পর একটি করে পোলে বাতি জ্বলবে। আর বাঁধের উপর যে বাতিগুলো রয়েছে, সেগুলো রাত ১১টার পর বন্ধ হয়ে যাবে। এতে রাজশাহীর জন্য কিছুটা হলেও বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে। এ সময় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের পানি ও বিদ্যুৎ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকুল আলম পল্টু, নির্বাহী প্রকৌশলী আসাদুজ্জামান সুইট, উপ-সহকারী প্রকৌশলী আসাদুল ইসলাম সুমন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী তানভীর হাসান সজিব ও উপ-সহকারী প্রকৌশলী কামাল পারভেজ সবুজ সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।