তথ্য বিবরণী : সকলের জন্য নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবার নিশ্চিত করতে সরকারের পাশাপাশি জনগণকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। গতকাল বুধবার (২২ জুন) দুপুরে নওগাঁর পোরশা উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে ‘নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ-এর আইন, বিধি ও প্রবিধিমালার প্রয়োগ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবার নিশ্চিত করতে হলে সরকারের পাশাপাশি জনগণকে এগিয়ে আসতে হবে। দেশের জনগণ সচেতন হলে অনিরাপদ খাবার উৎপাদন ও পরিবেশন বন্ধ হবে। বাংলাদেশ ইতিমধ্যে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে, কিন্তু আমাদের একটি অভাব রয়েই গেছে আর সেটি হল নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবারের অভাব। নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করাই এখন আমাদের প্রধান লক্ষ্য।

 

সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, আমাদের দেশে অনেক ভালো ভালো সবজি উৎপাদন হয়। উৎপাদক থেকে ভোক্তা পর্যন্ত প্রতিটি ধাপে এসব খাদ্যের নিরাপত্তা ও পুষ্টিমান বজায় রাখা জরুরি। দেশের প্রতিটি মানুষ খাদ্য নিরাপত্তার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট। যে উৎপাদন প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িত তার যেমন সচেতনতা প্রয়োজন, তেমনি যে ভোক্তা তার সঙ্গে নিরাপত্তার বিষয়টি অঙ্গাঙ্গিভাবে জড়িত। সুস্থ-সবল জাতি গঠনে সবাইকে নিরাপদ ও পুষ্টিকর খাবার গ্রহণের পরামর্শ দিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, যারা খাবারে ভেজাল দেয় অথবা ভেজাল খাবার তৈরি করে তাদের বিরুদ্ধে সবার সজাগ থাকতে হবে। খাদ্যে ভেজালকারবারীদের বিষয়ে প্রশাসনকে জানাতে হবে। এটি প্রতিটি নাগরিকের দায়িত্ব।

 

ফলমূল, শাকসবজিসহ অন্যান্য খাদ্য সংরক্ষণে ফরমালিনসহ অন্য যেকোনো অননুমোদিত রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবহার করলে, সেক্ষেত্রে নিরাপদ খাদ্য আইনে ৫ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড অথবা ২০ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দন্ডের বিধান রাখা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ফরমালিন নিয়ন্ত্রণ আইন অনুযায়ী ফরমালিনের যেকোনো অননুমোদিত ব্যবহার শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এসময় তিনি নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন, গ্রহণ ও পরিবেশনের পাশাপাশি বেশি লাভের আশায় হোটেল ব্যবসায়ীদের পঁচা, বাসি খাবার বিক্রি না করারও আহ্বান জানান। পোরশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হামিদ রেজার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী, জেলা নিরাপদ খাদ্য কর্মকর্তা চিন্ময় প্রামাণিক প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।