রাবি প্রতিনিধি : মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.) সম্পর্কে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির জ্যেষ্ঠ দুই নেতার অবমাননাকর মন্তব্যের প্রতিবাদে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) হাজারো সাধারণ শিক্ষার্থী বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার (৯ জুন) বেলা ১২ টায় বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ বুদ্ধিজীবী চত্বরের সামনে থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্যারিস রোডে এক বিক্ষোভ সমাবেশে মিলিত হয় তারা।

এসময় একজোটে স্লোগানে তারা বলেন, ‘মোদির দুই গালে জুতা মারো তালে তালে’, ‘নারায়ে তাকবির আল্লাহু আকবার’, ‘বিশ্ব নবীর অপমান সইবেনারে মুসলমান, তোমার নেতা আমার নেতা বিশ্ব নবী মোস্তফা’, ‘ইন্ডিয়ান পণ্য বয়কট বয়কট’, ‘বিশ্বের মুসলিম এক হও এক হও। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে পপুলেশন সায়েন্স এন্ড হিউম্যান রিসোর্স ডেভেলপমেন্ট ২০১৬-১৭ সেশনের শিক্ষার্থী আমান উল্লাহ বলেন, মহানবী (সাঃ) এর বিরুদ্ধে কটূক্তি স্বভাবতই মুসলমান এর মনে আঘাত হেনেছে এবং তা স্বাভাবিক। ভারতের উগ্রবাদী হিন্দুত্ববাদী রাজনীতি ভারতের সংখ্যালঘুদের জন্য বিপদজনক।বিশেষত,মুসলমানদের টার্গেট করে তাদের রাজনীতি নোংরামোর পর্যায়ে চলে গেছে। রাসুল সাঃ এর বিরুদ্ধে এহেন বক্তব্য এর তীব্র নিন্দা এবং প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে পরিস্থিতিকে অন্য খাতে নিয়ে বাংলাদেশে যেন দাংগা লাংগানোর পরিস্থিত কোন কুচক্রী মহল না সৃষ্টি করতে পারে সে বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান জানাই।

আরবি বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড ইফতেখারুল আলম মাসউদ বলেন, পৃথিবীর সবচেয়ে সাম্প্রদায়িক উগ্র রাষ্ট্র ভারত। তারা আমাদের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ রাসূলকে নিয়ে কটূক্তি করেছে। তারা রাসূলকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলা শুরু করেছে। তারা কয়েকবছর ধরে মুসলমানদের উপর নানা ভাবে নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে।আমরা এখানে সমবেত হয়েছি ঈমানের দাবি নিয়ে। জাতিসংঘে এটা নিয়ে কথা বলেছে। নব্বই শতাংশ মুসলিমের রাষ্ট্র বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে অবিলম্বে একটা স্পষ্ট প্রতিবাদ চাই। আমাদের সর্বোচ্চ প্রতিবাদ হতে পারে ভারতীয় সকল পণ্য বন্ধ করা। তাই আমরা বাংলাদেশ সরকারকে ভারতীয় সকল পণ্য ও টিভি চ্যানেল বন্ধের জোরালো দাবি জানাচ্ছি। এসময় ভারত সরকারের প্রতি রাষ্ট্রীয়ভাবে নিন্দা জ্ঞাপনের দাবি জানিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যায়নরত হাজারো শিক্ষার্থী এ বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন।