স্টাফ রিপোর্টার : রাজশাহীতে বিধিবহির্ভুতভাবে নকশা অনুমোদন না নিয়েই ভবন নির্মাণের প্রতিবাদ করায় একটি পরিবারকে মামলা দিয়ে হয়রানি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর একটি রেস্তোরাঁয় এই সংবাদ সম্মেলন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নগরীর চন্দ্রিমা থানার ছোটবনগ্রাম এলাকার বাসিন্দা গোলাম মোহাম্মদ আলী নামের এক ব্যক্তি।

তিনি বলেন, তার প্রতিবেশী মামুনুর রশিদ মামুন মাত্র ১৩ ছটাক জমির ওপর রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) নকশা অনুমোদন ছাড়াই পাঁচতলা ভবন করছেন। পাইলিং ছাড়াই তিনি ভবনটি নির্মাণ শুরু করেছেন। অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ ও যেকোন মুহুর্তে ভেঙ্গে পড়ার আশঙ্কা আছে। এ অবস্থায় মামুনুর রশিদদে এভাবে ভবন না করার অনুরোধ করা হলে তিনি শোনেননি। তাই আরডিএতে একটি অভিযোগ করা হয়।

এর পরিপ্রেক্ষিতে আরডিএ গত বছরের ২৩ নভেম্বর মামুনুর রশিদকে কারণ দশানোর নোটিশ দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গোলাম মোহাম্মদকে হয়রানি শুরু করেছেন প্রতিপক্ষ মামুনুর রশিদ। তিনি তার ছেলেকে আহত দেখিয়ে পূর্বপরিকল্পিতভাবে হাসপাতালে ভর্তি করেন এবং চন্দ্রিমা থানায় একটি মামলা করেন। এ মামলায় গোলাম মোহাম্মদ আলী আদালতে আত্মসমর্পন করেন এবং জামিন পান।তিনি অভিযোগ করেন, মামুনুর রশীদ তাকে নানাভাবে হুমকি দিয়ে আসছেন।

এ নিয়ে চন্দ্রিমা থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে গেলে পুলিশ নেয়নি। পরবর্তীতে তিনি আদালতে মামলা করেন। তবে হুমকি-ধামকিতে তিনি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। তিন মামুনুর রশিদের ঝুঁকিপুর্ণ ভবন দ্রুত অপসারণের দাবি জানান। এ ছাড়া মামলার সুষ্ঠু তদন্তও দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, শাহাবুদ্দিন, আসাদুল ইসলাম, মো. ডাবলু, ওবায়দুল হক ও মেরাজুল ইসলাম। অভিযোগের ব্যাপারে মামুনর রশিদ বলেন, হুমকি-ধামকি দেওয়ার অভিযোগ সঠিক নয়। আর ভবন নির্মাণের বিষয়ে আরডিএ থেকে কোনো নোটিশও পাননি। তাই অপসারণের প্রশ্নই ওঠে না।