রাবি সংবাদদাতা : প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর সরকারী চাকরীতে ৫ শতাংশ আদিবাসী কোটা পুনর্বহালের দাবিতে মানববন্ধন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) আদিবাসী শিক্ষার্থীরা। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকের সামনে আদিবাসী ছাত্র পরিষদের ব্যানারে এ মানবন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানবন্ধনে বক্তারা বলেন, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণীর সরকারী চাকরীতে আদিবাসী কোটা তুলে দেওয়ায় আমরা পিছেয়ে পড়া জনগোষ্ঠী আরও পিছিয়ে পড়েছি।

আমরা শিক্ষাক্ষেত্রে অনেক পিছিয়ে আছি। তারপরেও যদি আমাদের এই অধিকার কেড়ে নেওয়া হয়, তবে আমাদের আর বাঁচার জায়গা থাকবে না। আমরা মনে করি আদিবাসীদের কোটা এখনও প্রয়োজন। তাই অনতিবিলম্বে সরকারী চাকুরীতে ৫ শতাংশ আদিবাসী কোটা পুনর্বহালের দাবি জানাচ্ছি।

এসময় বক্তারা আরও বলেন, পার্বত্য অঞ্চলে আমদের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী বলা হয়, আমরা আসলেই সবক্ষেত্রে পিছিয়ে আছি। তবুও দেশের কোথাও কেউ অপরাধ করলে তাকে পার্বত্য চট্টগ্রামে বদলি করা হয়। যেখানে আমাদের আদর্শ ব্যক্তি দরকার সেখানে দুর্নীতিবাজ ব্যক্তিরা আসে। তাহলে আমদেও উন্নতি হবে কিভাবে? আমরা এখনও চাকরিক্ষেত্রে অন্যদের সমকক্ষ হতে পারিনি।

তাই সকল চাকরীতে আমাদের ৫% কোটা বহাল রাখার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি। এসময় কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন, রাবি শাখা আদিবাসী ছাত্র পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক দিবাসনজিত সরদার, পলাশ পাহান, চিভূতি ভূষণ মাহাতো, সুশান্ত কুমার সহীতা, বিজয় চাকমা, নকুল পাহানসহ প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী।