প্রেস বিজ্ঞপ্তি : রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটি (আরসিআরইউ)’র নতুন সহযোগী সদস্যদের বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১০টায় রাজশাহী কলেজের হাজী মোহাম্মদ মহসীন ভবনের গ্যালারিতে এই নবীন বরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আরসিআরইউ’র সভাপতি মাহাবুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর মোহা. আব্দুল খালেক। প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে নবীনদের উদ্যেশ্যে তিনি বলেন, সাংবাদিকতা হলো চর্চার বিষয়। আজকের এই নবীনেরা রিপোর্টার্স ইউনিটির সক্রিয় সদস্য হিসেবে সুবাংবাদিকতার চর্চা করবে। সুন্দর ও সৃজনলীন লেখনির মাধ্যমের সমাজের সত্যটাকে তুলে ধরবে।

নবীনদের মাঝে আমি সেই উৎসাহ ও উদ্দীপনা দেখতে পাচ্ছি। তিনি আরও বলেন, তোমাদের কাজের মাধ্যমে নতুন পরিচয় তৈরি হবে। নিজেকে গঠনের মধ্য দিয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণে আত্মনিয়োগ করবে। যেন তোমাদের কাজ তোমার বাবা-মা, তোমার রাজশাহী কলেজ ও দেশের সম্মানকে আরও উজ্জ্বল করে। এ সময় তিনি নবীন শিক্ষার্থীদের রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটিতে স্বাগত জানান। নবীন বরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, রাজশাহী কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর মোহা. ওলিউর রহমান, সংগঠনের অন্যতম উপদেষ্টা মনোবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আজমত আলী রকি, বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোস্তাফিজুর রহমান,

রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়ন (আরইউজে) সভাপতি ও দৈনিক কালের কন্ঠে’র ব্যুরো প্রধান রফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক যুগান্তরের স্টাফ রিপোর্টার তানজিমুল হক, সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. তঈবুর রহমান, রাজশাহী টেলিভিশন জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন (আরটিজেএ) সভাপতি মেহেদী হাসান শ্যামল, রাজশাহী ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি আসাদুজ্জামান আসাদ, আরসিআরইউ’র প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস সিদ্দিকী।

বিশেষ অতিথি’র বক্তব্যে রফিকুল ইসলাম বলেন, সাংবাদিকতায় আগ্রাহী শিক্ষার্থীদের নিয়ে রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটি যে কাজ করে যাচ্ছে তা প্রশংসিত। এই ইউনিটির ছেলে-মেয়েরা রাজশাহীর মূলধারার সাংবাদিকতায় নিজের অবস্থান তৈরি করে নিতেও সক্ষম হয়েছে। হলুদ সাংবাদিকতার যে অশুভ আগ্রাসন তার বিরুদ্ধেও তারা সোচ্চার রয়েছে। আগামীতেও এই ধারা অব্যাহত রেখে এই সংগঠন কাজ করে যাবে এমন প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন তিনি। আরইউজে সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. তঈবুর রহমান বলেন, একাত্তরের রাণাঙ্গনে তারা মুক্তিযোদ্ধারা দেশের জন্য যুদ্ধ করে স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছেন।

একাত্তর পরবর্তীতে সেই স্বাধীনতা রক্ষাসহ সমৃদ্ধ দেশ গড়তে সাংবাদিকতার মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছেন। এই প্রজন্মের যোদ্ধা হিসেবে সুসাংবাদিকতা চর্চার মাধ্যমে এই সংগঠন কাজ করে যাচ্ছে। আরটিজে সভাপতি মেহেদী হাসান শ্যামল বলেন, রাজশাহী কলেজের একমাত্র সাংবাদিক সংগঠন রাজশাহী কলেজ রিপোর্টার্স ইউনিটি। সুসাংবাদিকতা চর্চা ও দক্ষ সাংবাদিক তৈরিতে এই সংগঠনের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এই সংগঠনে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য সকল সুযোগ আছে। নবীন শিক্ষার্থীদের সেই সুযোগ কাজে লাগাতে হবে।