এফএনএস : বিশ্বকাপের আগে আইপিএলে দুর্দান্ত ফর্মে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি)। আর তাই দলের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার পরিবর্তে সাকিবের আইপিএল খেলায় সমর্থন রয়েছে বোর্ডের। আইপিএলের দ্বিতীয় অংশে কলকাতা নাইট রাইডার্সে বলতে গেলে সুযোগই পাচ্ছিলেন না সাকিব। তবে দলটির ক্যারিবিয়ান তারকা আন্দ্রে রাসেল ইনজুরিতে থাকায় ভাগ্য খুলে যায় সাকিবের। তিন ম্যাচ সুযোগ পেয়ে প্রতি ম্যাচেই কেকেআরের জয়ে অনবদ্য ভূমিকা রাখেন টাইগার অলরাউন্ডার। সবশেষ গত সোমবার এলিমিনেটর ম্যাচে ব্যাঙ্গালুরুর বিপক্ষে কলকাতার ম্যাচ জয়ের নায়কও সেই সাকিব।

গত সোমবার রাতে সাকিব যখন কলকাতার হয়ে খেলতে ব্যস্ত, তখনই উন্মোচিত হয়েছে বাংলাদেশের বিশ্বকাপ জার্সি। সেখানেই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন আকরাম। সাকিবকে নিয়ে করা এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, সে এ মুহুর্তে দলের সঙ্গে না থাকার বিষয়টি ইতিবাচক দৃষ্টিতেই দেখা হচ্ছে। বিসিবির প্রভাবশালী পরিচালক ও সবশেষ পরিচালনা পর্ষদের ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান বলেন, ‘সাকিব ম্যাচ খেলার মধ্যে থাকায় জাতীয় দলের প্রস্তুতি শিবিরে তার যোগদানে বিলম্ব হওয়া নিয়ে দলের কোনো অসুবিধা নেই।’ তিনি আরও বলেন, ৭ অক্টোবর পর্যন্ত সময়সীমা থাকলেও সাকিবের এনওসির (ছাড়পত্র) মেয়াদ আরও বাড়ানো হয়েছে।

আকরাম বলেন, ‘ক্রিকেটাররা বিশ্বকাপের আগে যত ম্যাচ খেলবে ততই ভালো। আর টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটটা তো অনেক ছোট, তিন ঘণ্টার খেলা। আমার মনে হয় এটা ওর জন্য এবং দলের জন্য অনেক ভালো হবে।’ তিনি আরও জানান, ‘আইপিএলে খেলা শেষ করে তবেই বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যোগ দেবেন সাকিব।’ তিনি বলেন,‘ও আইপিএলে দারুণ খেলছে এটা আমাদের জন্যই ভালো। যখনই ওর খেলা শেষ হয়ে যাবে তখনই বাংলাদেশ দলের সঙ্গে যোগ দেবে।’ আইপিএলের চলতি আসর থেকে রাজস্থান রয়্যালস ছিটকে পড়ায় মুস্তাফিজ অবশ্য এরইমধ্যে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন।

পুরোদমে শুরু করেছেন অনুশীলনও। অন্যদিকে সাকিবের দল কলকাতা নাইট রাইডার্স উঠেছে কোয়ালিফায়ারে। আগামী ১৩ অক্টোবর দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে লড়বে সাকিবরা। এরপর ১৫ অক্টোবর আইপিএলের ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে, বাংলাদেশ দল মঙ্গলবার আবুধাবিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে নামছে। এ ছাড়া দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচে আগামী ১৪ অক্টোবর আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে নামবে মাহমুদউল্লাহবাহিনী। আইপিএলে সাকিবদের খেলা শেষ না হওয়ায় প্রথম ম্যাচ তো বটেই, দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচেও সাকিবের অংশ নেওয়ার সম্ভাবনা কম।