এফএনএস : ছুটিতে দেশে এসে আটকে পড়া প্রায় ১২ হাজার প্রবাসী কাতার ফেরত যেতে চান। বাংলাদেশ-কাতার দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী কিংবা রাষ্ট্রপতি পর্যায়ে বৈঠকের মাধ্যমে ভিসা প্রক্রিয়া সহজ করার দাবি জানিয়েছেন প্রবাসীরা। গতকাল রোববার বেলা ১২টায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে অবস্থান করে বিভিন্ন দাবি জানান প্রবাসীরা। দাবি আদায়ে প্রয়োজনে সৌদি প্রবাসীদের মতো বিক্ষোভ কর্মসূচির হুমকিও দেন তারা। চাঁদপুরের কাতার প্রবাসী ইসমাইল হোসেন বলেন, ১২ থেকে ১৩ মাস কাতার প্রবাসীরা আটকে আছেন।

তারা মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। সরকার কিংবা কোনো এনজিওর পক্ষ থেকে আমাদের কোনো সাহায্য করা হয়নি। নতুন এন্ট্রি পারমিট পদ্ধতির কারণে আমরা দেশে আটকে পড়েছি। অতি শিগগিরই কাতার ফিরিয়ে নেয়ার জন্য এই পদ্ধতি সহজ করার দাবি জানাই। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমাদের দাবি কাতার সরকারের সঙ্গে উচ্চ পর্যায়ে সফর করে তারা যেন এন্ট্রি পারমিট নামক বিকল্প পদ্ধতি সহজ করার পদক্ষেপ নেয়।

বক্তারা বলেন, আমাদের রি-এন্ট্রি পারমিট সহজ করে দিলে আমরা বিদেশে যেতে পারবো। আমরা করোনার কারণে ছুটিতে এসে কেউ ১১ মাস, কেউ ১২ মাস আটকে আছি। রি-এন্ট্রি পারমিট সহজ করতে দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ে বৈঠক প্রয়োজন। তারা বলেন, ৯৫ শতাংশ কাতার প্রবাসীর ভিসার মেয়াদ শেষ, বিগত ৪ মাস ধরে আমরা রি-এন্ট্রির মাধ্যমে আবেদন করছি, কিন্তু আমাদের আবেদন নিচ্ছে না। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে করোনার প্রকোপ অনেক বেশি অথচ সেখান থেকে কাতারে যাচ্ছে সে দেশের শ্রমিকরা। কূটনৈতিক প্রক্রিয়া সহজ করে দ্রুত প্রবাসীদের কাতার পাঠানোর জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান তারা।