শনিবার

২২শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

৮ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জে বাইডেনের বিজয় নিশ্চিত করল যুক্তরাষ্ট্র’র ইলেকটোরাল কলেজ

Paris
Update : বুধবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০২০

এফএনএস : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট জো বাইডেনের জয় নিশ্চিত করেছে দেশটির ইলেকটোরাল কলেজ।ইলেকটোরাল কলেজের ভোট সাধারণভাবে একটি আনুষ্ঠানিকতা হলেও প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনের ফল না মেনে তা চ্যালেঞ্জ করায় এবার এই ভোট তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে ওঠে; রাজ্যে রাজ্যে অনুষ্ঠিত এই ভোটের দিকে চোখ রাখছিলেন সবাই। সোমবার শেষ পর্যায়ে যেসব রাজ্যগুলোতে ভোট হয় তার মধ্যে ক্যালিফোর্নিয়া অন্যতম ছিল। ডেমোক্র্যাটপন্থি বলে পরিচিত ক্যালিফোর্নিয়ার ৫৫টি ইলেকটোরাল ভোট পাওয়ার মধ্য দিয়ে বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়ী হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ২৭০ ভোটের মাইলফলক পার হন। বিবিসি জানিয়েছে, ভোটকে সামনে রেখে মিশিগান ও জর্জিয়াসহ কয়েকটি রাজ্যে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

রাজ্যগুলোর রাজধানী ও ওয়াশিংটন ডিসিতে এ ভোট গ্রহণ করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনী পদ্ধতিতে ভোটাররা তাদের ভোটের মাধ্যমে মূলত ‘ইলেকটরদের’ নির্বাচিত করেন। নির্বাচনের কয়েক সপ্তাহ পর এই ইলেকটররা আনুষ্ঠানিকভাবে প্রার্থীদের পক্ষে ভোট দেন। ৩ নভেম্বরের নির্বাচনে ডেমোক্র্যাট জো বাইডেন ৩০৬ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট পান আর রিপাবলিকান ডনাল্ড ট্রাম্প পান ২৩২ ভোট। ইলেকটোরাল কলেজ প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তার জয় নিশ্চিত করার পর বাইডেন নিজ শহর উইলমিংটন (ডেলাওয়্যার রাজ্য) থেকে দেওয়া ভাষণে বলেন, “জনগণের ইচ্ছাই বজায় আছে।” তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রকে ‘ধাক্কা, পরীক্ষা ও হুমকি’ দেওয়া হলেও ‘এটি দৃঢ়, সত্য ও শক্তিশালী প্রমাণিত হয়েছে’।

নির্বাচনের ফলকে চ্যালেঞ্জ করার ট্রাম্পের উদ্যোগের কথা তুলে তিনি বলেন, “এখন নতুন করে সবকিছু শুরু করার সময়।” ইলেটোরাল কলেজের এ ঘোষণার মাধ্যমে বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পথে আরও এক কদম এগিয়ে গেলেন। আগামী ২০ জানুয়ারি তিনি ও তার রানিং মেট কমলা হ্যারিস প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্টর শপথ গ্রহণ করবেন। তবে এই ফলাফল মেনে নেওয়ার কোনো ইঙ্গিত দেনটি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। ইলেকটোরাল কলেজের ফল ঘোষণার পর তিনি কোনো মন্তব্যও করেননি। নির্বাচনের ফল নিশ্চিত হওয়ার কিছুক্ষণ পর টুইটারে দেওয়া এক ঘোষণায় তিনি যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল উইলিয়াম বারের দায়িত্ব ছাড়ার কথা জানান।

ট্রাম্পের দাবি সত্ত্বেও নির্বাচনে বড় ধরনের কোনো জালিয়াতি হয়নি বলে মন্তব্য করেছিলেন বার। নিজের প্রায় ১৩ মিনিটের ভাষণে বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের সাধারণ নাগরিকদের প্রশংসা করেন। তারা কোনো হুমকিকে আমলে নেয়নি বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, “অনেক দিন আগে এই জাতিতে গণতন্ত্রের শিখা প্রজ্জ্বলিত হয়েছিল আর আমরা জানি, কোনো কিছুই এমনকি মহামারী বা ক্ষমতার অপব্যবহারও এই শিখাকে নেভাতে পারবে না। “ঐক্যবদ্ধ হতে, ক্ষত সারাতে- নতুন করে সবকিছু শুরু করতে হবে, আমাদের পুরো ইতিহাসজুড়ে যেমনটি করে এসেছি আমরা।”


আরোও অন্যান্য খবর
Paris