স্টাফ রিপোর্টার : বাগমারা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই গতকাল সোমবার থেকে শুরু হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে এই কার্যক্রম সকাল নয়টা থেকে শুরু হয়। প্রথম দিনে উপজেলার সোনাডাঙ্গা, আউচপাড়া, নরদাশ, গোবিন্দপাড়া ও মাড়িয়া ইউনিয়নের যাচাই-বাছাই করা হয়। কমিটির সভাপতি আলী খাজা এম এ মজিদ, সদস্য সচিব ইউএনও শরিফ আহম্মেদ ও সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মকলেছুর রহমান এই কার্যক্রম পরিচালনা করেন। প্রথম দিনে সোনাডাঙ্গা ইউনিয়নের বীরমুক্তিযোদ্ধা সাবেক উপাধ্যক্ষ মতিউর রহমান টুকুর সাক্ষাতকারের মাধ্যমে এই কার্যক্রম শুরু হয়।

তিনি ১৯৭১ সালের রনাঙ্গনের চিত্র তুলে ধরা ছাড়াও যুদ্ধের বিভিন্ন অপারেশন এবং খুঁটি নাটি তুলে ধরেন। তিনি আত্রাই থানার তালনগর বাহুল্যা ও সোনাডাঙ্গার ভরট্ট লিখড়াপাড়ায় রাজাকারদের সঙ্গে সম্মুখযুদ্ধে অংশ নেন তিনি। ওই অপারেশনে বেশ কয়েকজন রাজাকার নিহত হয়। এসময় বাছাই কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্তরা সন্তোষ প্রকাশ করেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান টুকু তালিকাভূক্ত হয়ে সম্মানী ভাতা পেয়ে আসছেন। এক প্রতিক্রিয়ায় মতিউর রহমান বলেন, কমিটির সদস্যরা তিনিসহ অন্যদের সঙ্গে সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণ করেন।

এতে বিজয়ের মাসে বাগমারার মুক্তিযোদ্ধা খুশি। আগামি ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই কার্যক্রম চলবে। সাবেক কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম এক প্রতিক্রিয়ায় জানান, কমিটি স্বচ্ছতা ও আন্তরিকতার মাধ্যমে কার্যক্রম শুরুতে উপজেলার বীরমুক্তিযোদ্ধরা খুশি। তাঁরা এই কাজে সার্বিক সহযোগিতা করবেন।