এফএনএস : মুশফিক-নাঈম-রুবেল-সাব্বির-ইয়াসির আলীদের নিয়ে ভালো দল গড়েছিল বেক্সিমকো ঢাকা। কাগজে-কলমে শক্তিটা যেমন দেখিয়েছিল, বঙ্গবন্ধু কাপ টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে সে অনুযায়ী সাফল্য পায়নি মুশফিকের দল। পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় দল হয়েই খেলতে হচ্ছে প্লে-অফ। সোমবার ফরচুন বরিশালের বিপক্ষে এলিমেনেটর ম্যাচ জিতেই দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার খেলতে হবে মুশফিকের দলকে। ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ মনে এলিমিনেটর খেলতে হলেও তার দল এর চেয়ে ভালো। মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে সংবাদমাধ্যমকে বেক্সিমকো ঢাকার কোচ খালেদ মাহমুদ বলেছেন, ‘দুটি রানের জন্য আমরা কোয়ালিফায়ার খেলতে পারছি না।

কিন্তু কোয়ালিফায়ারে খেললেও আপনাকে ম্যাচ জিতেই কিন্তু ফাইনালে যেতে হবে। চ্যাম্পিয়ন হতে হলে আবার ম্যাচ জিততে হবে। এখন হয়তো আমাদের একটি ম্যাচ বেশি খেলতে হবে। কিন্তু আমরা যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী, কাল (শনিবার) যে ভুলগুলো করেছি সেই ভুলগুলো কাটিয়ে ওঠার ব্যাপারে। আমি মনে করি আমরা যেমন পারফরম্যান্স করেছি, তার চেয়ে ভালো দল। বিশেষ করে প্রথম তিন ম্যাচ হারার পর যেভাবে কাম ব্যাক করেছি। আমার বিশ্বাস দলের মধ্যে আত্মবিশ্বাসের কোনও ঘাটতি নেই।‘ বরিশালের বিপক্ষে লিগ পর্বে দুইবার মুখোমুখি হয়েছে ঢাকা। দুই দলই একবার করে জিতেছে।

সোমবার এলিমিনেটর ম্যাচ একদল আরেক দলকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ দেবে। মাহমুদ মনে করেন প্লে-অফে বরিশালকে সামনে পাওযাটাই তাদের জন্য ভালো হয়েছে, ‘বরিশালও খুব ভালো একটি দল। তাদের সঙ্গে এর আগেও দুইবার খেলেছি, একবার জিতেছি একবার হেরেছি। কালকের (শনিবার) ম্যাচটি যদি আমরা অনেক রানে হেরে যেতাম তাহলে হয়তো চাপে থাকতাম। কিন্তু সোমবার ম্যাচের আগে আমরা দারুণ আত্মবিশ্বাসী। আমি তো মনে করি বরিশালের প্রতিপক্ষ হওয়ায় আমাদের পরিকল্পনা সাজাতে আরও বেশি সহজ হয়েছে।

আমরা লড়াই করতে চাই, ভালো খেলতে চাই। ’ শনিবার ঢাকাকে জেতাতে না পারলেও ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন নাঈম শেখ। ৬০ বলে সেঞ্চুরি ছোঁয়া নাঈম শেষ পর্যন্ত থামেন ৬৪ বলে ১০৫ রানের ইনিংস খেলে। নাঈমের প্রশংসা ঝরেছে গিয়ে ঢাকার কোচের কণ্ঠে, ‘আমার মনে হয় ওর (নাইম শেখ) মানসিকতা খুব ভালো। স্কিল আর টেকনিকে কোনও সমস্যা থাকার কথা না। নাঈম উইকেটে সেট হওয়ার পর বড় রান করে। মানে টি-টোয়েন্টি এমন একটি খেলা আপনাকে চান্স নিতেই হবে, পজিটিভ থাকতে হবে। ওর মধ্যে এই পজিটিভনেসটা আছে।’