বৃহস্পতিবার

১৮ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সর্বশেষ সংবাদ

টাইম ম্যাগাজিনে ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ বাইডেন ও হ্যারিস

Paris
Update : শনিবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০২০

এফএনএস : যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে ইতিহাস গড়ে প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া জো বাইডেন ও কমলা হ্যারিসকেই ২০২০ সালের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ হিসেবে বেছে নিয়েছে টাইম ম্যাগাজিন। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাময়িকী টাইম প্রতি বছরের শেষে আলোচিত ব্যক্তিত্ব নির্বাচন করে, যাকে তারা বলে ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’। ধরিত্রীকে রক্ষায় স্কুল বাদ দিয়ে জলবায়ু আন্দোলনে শামিল হওয়া সুইডিশ কিশোরী গ্রেটা থানবার্গকে ২০১৯ সালের ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ ঘোষণা করেছিল টাইম। “বাইডেন-হ্যারিসের এ জয় এমন কিছুর প্রতিনিধিত্ব করে, যা ঐতিহাসিক,” টুইটারে এমনটাই বলেছে টাইম। এ নিয়ে প্রথমবার যুক্তরাষ্ট্রের কোনো ভাইস প্রেসিডেন্টের নাম টাইমের বর্ষসেরা ব্যক্তিতে এলো। “আগামী চার বছর তাদের (বাইডেন-হ্যারিস) জন্য ব্যাপক পরীক্ষার হতে যাচ্ছে।

আমরা সবাই দেখবো, তারা যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, সেই একতা তারা আনতে পারেন কিনা,” এক ভিডিওতে এমনটাই বলেছেন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাময়িকীটির প্রধান সম্পাদক এডওয়ার্ড ফেলসেনথাল। সিবিএস জানিয়েছে, বাইডেন-হ্যারিস ছাড়াও এ বছর ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ হওয়ার দৌড়ে ছিলেন ডনাল্ড ট্রাম্প, অ্যান্থনি ফাউচি ও তার সঙ্গে করোনাভাইরাস মোকাবেলায় লড়া সম্মুখসারির স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা এবং বর্ণবাদবিরোধী ‘দ্য মুভমেন্ট ফর রেসিয়াল জাস্টিস’ আন্দোলন। টানটান উত্তেজনার নির্বাচনের পর গত ৭ নভেম্বর ডনাল্ড ট্রাম্প ও মাইক পেন্সকে হারিয়ে বাইডেন ও হ্যারিস যুক্তরাষ্ট্রের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে আবির্ভূত হন।

এর মাধ্যমে তারা রিপাবলিকান ডনাল্ড ট্রাম্পকে মার্কিন প্রেসিডেন্টদের সেই ছোট ক্লাবের সদস্য করে দেন, যারা মাত্র এক মেয়াদে দেশ পরিচালনা করেছিলেন। কমলা হ্যারিস যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী ও প্রথম এশীয় বংশোদ্ভূত ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়ে গড়েন ইতিহাস। “যুক্তরাষ্ট্রের কাহিনি বদলে দিয়ে, সহমর্মিতার শক্তি যে বিভাজনের উন্মত্ততা থেকে শক্তিশালী তা দেখিয়ে, আঘাতে জর্জরিত পৃথিবীকে সারিয়ে তোলার স্বপ্ন হাজির করে চলতি বছর টাইমের পারসন অব দ্য ইয়ার হয়েছেন জো বাইডেন ও কমলা হ্যারিস,” লিখেছেন সাময়িকীটির প্রধান সম্পাদক। ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ ঘোষণার পাশাপাশি টাইম টুইটারে চলতি বছরের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ আন্দোলন, দাঙ্গা, কোভিড-১৯ এ ভয়াবহ প্রাণহানি ও আতঙ্কের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে একটি ভিডিও-ও ছেড়েছে। “২০২০ সদয় বছর ছিল না। এই বছরটি দুর্বল ও অসুস্থদের শিকার করেছে। অসংখ্য জীবন আর বিশ্বাসের পরীক্ষা নিয়েছে।

বছরটি পূর্ণ ছিল বিভক্তি আর তুমুল অরাজকতায়। … কিন্তু এটা এখনও সেই পৃথিবী যেখানে সাহস আছে, আছে সহমর্মিতা ও ভালোবাসা,” ভিডিওতে ধারাভাষ্যকারকে এমনটাই বলতে শোনা যায়। টাইম ১৯২৭ সাল থেকেই ‘পারসন অব দ্য ইয়ার’ খেতাব দিয়ে আসছে। প্রথমদিকে এটি ‘ম্যান অব দ্য ইয়ার’ থাকলেও পরে নাম বদলে যায়। ব্যক্তির পাশাপাশি বিভিন্ন গোষ্ঠী, আন্দোলন এমনকী ধারণাও বিগত বছরগুলোতে এ খেতাব পেয়েছে। চলতি বছর টাইমের ‘বিজনেসপারসন অব দ্য ইয়ার’ হয়েছেন অনলাইন প্ল্যাটফর্ম জুমের প্রধান নির্বাহী ইরিক ইউয়ান।

ড. অ্যান্থনি ফাউচি ও সম্মুখসারির স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের পাশাপাশি ‘গার্ডিয়ান অব দ্য ইয়ার’ হয়েছেন আশা ট্রায়োরে, পোরশে বেনেট-বে এবং বর্ণবাদবিরোধী বিভিন্ন সংগঠন। এ বছর ‘এন্টারটেইনমেন্ট অব দ্য ইয়ার’ স্বীকৃতি গেছে কে-পপ ব্যান্ড বিটিএসের ঝুলিতে; ‘অ্যাথলেট অব দ্য ইয়ার’ হয়েছেন বাস্কেটবল তারকা লেব্রন জেমস।


আরোও অন্যান্য খবর
Paris