বড়াইগ্রাম সংবাদদাতা : নাটোরের বড়াইগ্রামের ৫ বছর বয়সী শিশু মাহমুদা খাতুন মুন্নী হত্যা মামলায় একজনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড ও ৫০হাজার টাকা জরিমানার আদেশ দিয়েছে আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নাটোর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আব্দুর রহিম এই আদেশ প্রদান করেন। নাটোর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি সিরাজুল ইসলাম জানান, ২০১৫ সালের ২০ডিসেম্বর বড়াইগ্রাম উপজেলার উপলশহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেনীর ছাত্রী মাহমুদা খাতুন মুন্নী বাড়ির পাশে খেলতে যায়।

এসময় মুন্নীকে প্রতিবেশী সোহেল সরকার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। পরে মুন্নীর শরীরে থাকা স্বর্ণের চেইন ও কানের দুল নিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে বাড়ির পাশে পুকুরে ফেলে দেয়। পরের দিন মুন্নীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় মুন্নীর পিতা লোকমান সরকার বাদী হয়ে অভিযুক্ত মা ও ছেলের নামে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে আদালতের বিচারক মামলার স্বাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে সোহেল সরকারকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড এবং সোহেল সরকারের মা সাজেদা বেগমকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন।