রবিবার

৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

১৯শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বাগমারায় তিন শিক্ষকসহ দুই পরিবারকে ফাঁসানোর চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন

Paris
Update : শুক্রবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০২০

সাবাইহাট থেকে প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাগমারায় মামলা দিয়ে তিন শিক্ষকসহ অপর দু’টি পরিবারকে ফাঁসানোর চেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন করা হয়েছে। উপজেলার ১৩নং গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের দক্ষিণ সাঁজুড়িয়া গ্রামে এলাকাবাসীর উদ্যোগে এ মানববন্ধন করা হয়। ঘটনা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে একই গ্রামের ইয়াকুব আলী গংদের সাথে, জামিউল করিম গংদের পূর্ব শত্রুতার জের চলে আসছে। আব্দুল জব্বারের ছেলে জামিউল করিম ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা বাড়ীর প্রাচীরে রক্ষিত পাট কাঠিতে আগুন দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর চেষ্টা করে যাচ্ছেন বলে কয়েকজন গ্রামবাসী জানিয়েছেন।

এক দিনের ব্যবধানে জামিউল করিম বাদী হয়ে কোর্টে একাধিক মামলা দায়ের করেন। সব মামলার বিবাদী করা হয়েছে একডালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক উসমান আলী, কনোপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আব্দুস সামাদ, তাহেরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক আবু সাঈদ, ইয়াকুব আলী, ডালিম এবং আক্কাছ আলীকে।

মামলার ৪নং সাক্ষী মির্জাপুর গ্রামের মৃত সরাফত মন্ডলের ছেলে গোলাম মোস্তফা, দক্ষিণ সাঁজুড়িয়া গ্রামের আহাদ আলী আকন্দের ছেলে মামলার ৩নং সাক্ষী আবুল কালাম আজাদ জানান, এ মামলা ও ঘটনা সমন্ধে আমরা কিছুই জানি না, অথছ আমাদের সাক্ষী করা হয়েছে।বাদীর আপন মামা মসজিদের ইমাম, আমানউল্লা, গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু মোল্লা, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হেড মাষ্টার বকুল হোসেন খরাদি, গ্রামবাসী আসাদুল ইসলাম, ২নং ইউনিটের মেম্বার আবেদ আলী এবং গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলমগীর সরকার বলেন, যাঁদের মিথ্যা মামলায় আসামী করা হয়েছে তাঁরা সকলেই সজ্জন ব্যক্তি।

তাঁরা এ ধরণের মিথ্যা মামলায় হতাশা ব্যক্ত করেন। বাগমারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শরিফ আহম্মেদের নিকট মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি এবং উপজেলা চেয়ারম্যান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জানিয়ে বলেন, ওদের মধ্যে দ্বন্দ্বের কারণে নিজেরাই নিজেদের বাড়িতে আগুন লাগিয়েছেন বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে।


আরোও অন্যান্য খবর
Paris