এফএনএস : পয়েন্ট টেবিলে সবার নিচে ফরচুন বরিশাল। অনেকটাই অনভিজ্ঞ এক দল, তামিম ইকবাল একা কিছুই করতে পারছেন না বঙ্গবন্ধু কাপ টি-টোয়েন্টিতে! তবুও টুর্নামেন্টের বাকি তিন ম্যাচে দল হিসেবে ভালো কিছু করতে চান তামিম। রোববার মিরপুর একাডেমিতে পুরো দল নিয়ে অনুশীলন করেছেন। অনুশীলন শেষে সংবাদমাধ্যমকে বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা ওপেনার জানিয়েছেন আগের ম্যাচের ভুলগুলো শুধরে বাকি ম্যাচগুলোতে জেতার চেষ্টা করবেন।

মিরপুরে শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদমাধ্যমকে তামিম বলেছেন, ‘কোনও দিক থেকেই আমাদের পরিস্থিতি ভালো নয়। আমাদের জিততেও হবে, প্লাস অন্য খেলার রেজাল্টও আমাদের পক্ষে যেতে হবে। আমরা যদি পরবর্তী তিনটা ম্যাচ ভালো করতে পারি, তাহলে আমাদের অবশ্যই ভালো সুযোগ থাকবে কোয়ালিফাই করার। আসলে ক্রিকেট এমন একটা খেলা হয়তো সামনের তিন ম্যাচে আমাদের ভালো ক্রিকেট খেলা হয়ে যাবে। আমি সেটি বিশ্বাস করি।

সুতরাং এটাই আশা করবো পরের তিন ম্যাচ আমাদের ভালো যাবে। আর প্রথম ৪-৫ ম্যাচের ভুলগুলো শুধরে আমরা ফলাফল আমাদের পক্ষে আনতে পারবো।’ পুরো টুর্নামেন্টে একাই লড়ে গেছেন তামিম। কিন্তু সেটিও ম্যাচ জেতার জন্য যথেষ্ট ছিল না। তাই তো বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক দলকে উদ্ধুদ্ধ করেও ব্যর্থ হচ্ছেন, ‘দল যখন খুব বেশি একটা ভালো খেলে না, তখন মোটিভেট করাটাও একটু কঠিন। আমাদের স্কোয়াডে বেশিরভাগই তরুণ খেলোয়াড়। তারা সবাই ট্যালেন্টেড। আমার তরফ থেকে আমি সবসময় তাদের সঙ্গে কথা বলি। আর মাঝেমাঝে এসব সময়ে সবচেয়ে ভালো আমার কাছে যেটা মনে হয়, কথার চেয়ে যদি কাজে করে দেখানো যায়, সেটাই ভালো।

আমি কথা তো সারাদিন বলতে পারবো, কিন্তু আমি নিজেও যদি একই ভুলগুলো করি, তাহলে ওই কথাগুলোর মূল্য থাকে না। আশা করি আমরা ঘুরে দাঁড়াবো।’ অন্য দলের ব্যাটসম্যানরা পারলেও পারছেন না চট্টগ্রামের ব্যাটসম্যানরা। ফলে উইকেটের দোষ দিতে নারাজ তামিম, ‘সবাই একই উইকেটে খেলছে। যারা ভালো খেলছে, তারাও একই উইকেটে খেলছে। উইকেটকে আমি কোনও সময় দোষ দিচ্ছি না। উইকেট কঠিন হলে তো ওই উইকেটে খেলতে হবে। কীভাবে কোন প্রক্রিয়ায় খেলতে হবে সেটি আমাদের চিন্তা করতে হবে। কঠিন উইকেটে হয়তো ১২৫-১৩০ স্ট্রাইক রেট থাকবে না, কিন্তু ১০৫-১১০ স্ট্রাইক রেটেও ব্যাটিং করতে পারেন। অফ-ফর্ম যেকোনও সময় যে কারও যেতে পারে। দুর্ভাগ্যবশত আমরা যাদের ওপর বেশি নির্ভর করছিলাম, তারা একটু অফ-ফর্মে যাচ্ছে।

কিন্তু ক্রিকেট খেলাটাই এমন। আসলে টি-টোয়েন্টিতে ১-২ টা ভালো শটও আপনাকে ফর্মে ফিরিয়ে নিয়ে আসতে পারে বা ভালো ইনিংস ফর্মে ফিরিয়ে আনতে পারে।’ দলের মালিকের জন্য হলেও জয় উপহার দিতে চান তামিম, ‘ফ্র্যাঞ্চাইজির সবাই যথেষ্ট চেষ্টা করেছেন। আমাদের পাঁচটি ম্যাচে উল্লেখ করার মতো কোনও পারফরম্যান্স ছিল না। কিন্তু তারা আমাদের খারাপ সময়ে, আমাদের সঙ্গে আছেন। বিশেষ করে দলের মালিক। আশা করি উনাকে আমরা কিছু উপহার দিতে পারি। দল কেমন কিংবা কেমন হতে পারতো, এগুলো বলে লাভ নেই। আমি যেটা বললাম সবাই বেশ সামর্থ্যবান। উনাকে (দলের মালিক) যাতে একটু খুশি করতে পারি, এটাই চেষ্টা করবো।’