এফএনএস : প্রথমবারের মতো প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও উপ-প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (ডেপুটি সিইও) নিয়োগ দিয়েছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফবিসিসিআই)। মোহাম্মদ মাহফুজুল হক সংগঠনটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) এস এম ফেরদৌস উপ-প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নিয়োগ পেয়েছেন। দুজনই নিজ পদে যোগ দিয়েছেন বলে গতকাল বুধবার এফবিসিসিআই থেকে জানানো হয়েছে।

এফবিসিসিআইয়ের সিইও নিয়োগ পাওয়া মোহাম্মদ মাহফুজুল হক অবসরপ্রাপ্ত অতিরিক্ত সচিব। তিনি ৩৪ বছরের বেশি সময় ধরে সিভিল সার্ভিস পেশাজীবী হিসেবে পাবলিক পলিসি, রুলস, রেগুলেশন, গাইডলাইন, স্ট্যান্ডার্ড অপারেশন প্রসিডিউর, কোড অব প্র্যাকটিসেস প্রণয়নের পাশাপাশি মাঠ পর্যায়ে এসব রীতিনীতি বাস্তবায়নে নেতৃত্ব দিয়েছেন। সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন স্তরে প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো গঠন ও পুনর্গঠন, মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা, প্রশাসন ও আর্থিক ব্যবস্থাপনা, প্রকল্প ব্যবস্থাপনা, খাদ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ কার্যক্রম সমন্বয়, সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনী ব্যবস্থাপনা এবং জীবন বীমা ব্যবস্থাপনায় কাজ করেছেন মাহফুজুল হক।

১৯৮৬ সালের ২১ জানুয়ারি তিনি বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে যোগদানের মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন। মাহফুজুল হক সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন ফুড সেফটি অ্যান্ড ট্রেড, ভারতের নয়াদিল্লিতে অনুষ্ঠিত সিআইআই ফুড সেফটি সামিট, জাপানের টোকিওতে অনুষ্ঠিত জিটুজি অ্যান্ড জিটুবি মিটিং বাই দ্য জিএফএসআই অ্যান্ড দ্য কনজ্যুমার গুডস ফোরামসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সম্মেলন, কর্মশালা ও প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

এফবিসিসিআইয়ের ডেপুটি সিইও জেনারেল (অব.) এস এম ফেরদৌস ১৯৬৪ সালে খুলনায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৮৪ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে ক্যাডেট হিসেবে যোগদানের পর ১৯৮৫ সালে কমিশনপ্রাপ্ত হন। সেনাবাহিনীর একজন গর্বিত সদস্য হিসেবে দীর্ঘ ৩৪ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করে তিনি ২০১৯ সালের আগস্টে অবসর গ্রহণ করেন। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ছাড়াও তিনি ওমানে বাংলাদেশ দূতাবাস লেবার কাউন্সিলর হিসেবে এবং সিয়েরা লিয়নে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী বাহিনীতে কাজ করেছেন।